২০২০ সাল নাগাদ আসবে ২শ’ মিটারগেজ কোচ

২০২০ সাল নাগাদ আসবে ২শ’ মিটারগেজ কোচ

তৌফিকুল ইসলাম : দেশের জনসাধারণকে নিরাপদ, আরামদায়ক, সহজলভ্য ও পরিবেশবান্ধব রেলসেবা দেওয়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশ রেলওয়ে ইন্দোনেশিয়া থেকে ২০০ মিটারগেজ কোচ আমদানি করছে। ২০২০ সাল নাগাদ কোচগুলো বাংলাদেশে এসে পৌঁছাবে।

‘বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য মিটারগেজ এবং ব্রডগেজ প্যাসেঞ্জার ক্যারেজ বা কোচ সংগ্রহ’ প্রসঙ্গে মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) বাংলাদেশ রেলওয়ের প্রকল্প দফতর এ তথ্য জানায়।

প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, এ প্রকল্পের আওতায় নয় ধাপে ইন্দোনেশিয়া থেকে ২০০টি মিটারগেজ কোচ বাংলাদেশে নিয়ে আসা হবে। এর মধ্যে গত ১ আগস্ট প্রথম ধাপে ২৬টি মিটারগেজ কোচ দেশে এসে পৌঁছায়। দ্বিতীয় ধাপে চলতি বছরের ১ অক্টোবর আরও ২২টি মিটারগেজ কোচ দেশে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। এ ছাড়া তৃতীয় ধাপ থেকে অষ্টম ধাপ পর্যন্ত প্রতি ধাপে ২২টি করে মোট ১৩২টি কোচ আসবে। সবশেষে নবম ধাপে ২০২০ সালের জুলাই মাস নাগাদ আরও ২০টি মিটারগেজ কোচ বাংলাদেশ এসে পৌঁছাবে।

প্রকল্পের বিষয়ে সাবস্টেশন ইঞ্জিনিয়ার মো. সাখাওয়াত হোসেন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, প্রকল্পের আওতায় ইতোমধ্যেই ইন্দোনেশিয়া থেকে তিন ধাপে ৫০টি ব্রডগেজ কোচ দেশে নিয়ে আসা হয়েছে। বিভিন্ন রুটে কোচগুলো চলাচল করছে। আমদানি করা ব্রডগেজ কোচ দিয়ে পঞ্চগড় এক্সপ্রেস, বনলতা এক্সপ্রেস, বেনাপোল এক্সপ্রেস চালানো হচ্ছে। এ তিন ট্রেনের প্রতিটিতে ১২টি করে কোচ সংযোজন করা হয়েছে অর্থাৎ তিনটি ট্রেনে মোট ৩৬টি কোচ ব্যবহার করা হয়েছে। আমদানি করা ৫০টি ব্রডগেজ কোচের মধ্যে এখনও ১৪টি কোচ আমাদের স্টকে আছে, প্রয়োজনে এসব কোচ বিভিন্ন রুটে নামোনো হবে।

রেলের প্রকল্প দফতর থেকে আরও জানা যায়, ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করা প্রতিটি মিটারগেজ কোচের মূল্য ৩.০৩ কোটি টাকা‌ এবং প্রতিটি ব্রডগেজ কোচের মূল্য ৪.২২ কোটি টাকা। আমদানি করা মিটারগেজ কোচের ১৮টি এসি বার্থ বা প্রথম শ্রেণির এসি স্লিপারযুক্ত কোচ থাকবে ১০টি। ৫৫ সিট বিশিষ্ট এসি চেয়ার কোচ থাকবে ৪০টি। ৬০ সিট বিশিষ্ট শোভন চেয়ার কোচ থাকবে ১১২টি। ১৫ সিট বিশিষ্ট খাবার গাড়ি ও গার্ড ব্রেকসহ কোচ থাকবে ২৫টি। পাওয়ার কার ও নামাজ ঘরসহ কোচ থাকবে ১৩টি।

বাংলাদেশ রেলওয়ের ক্যারেজ সংগ্রহ প্রকল্পের সদ্য বিদায় নেওয়া পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার হারুন-অর-রশিদ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, প্রকল্পের আওতায় মিটারগেজ ও ব্রডগেজ প্যাসেঞ্জার কোচ ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করা হচ্ছে। এর মধ্যেই ৫০টি ব্রডগেজ কোচ চলে এসেছে, যা দিয়ে আমরা যাত্রীসেবা দিচ্ছি। মিটারগেজ কোচগুলো ২০২০ সাল নাগাদ বাংলাদেশে চলে আসবে। আধুনিক এসব মিটারগেজ কোচ দেশে চলে আসার পরে বিভিন্ন রুটে সেগুলো নামানো হবে।

রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে বাংলাদেশ রেলওয়ের রেলপথের দৈর্ঘ্য এখন পর্যন্ত ২৯২৯.৫০ কিলোমিটার। সারাদেশে চলাচলকারী মোট যাত্রীবাহী ট্রেনের সংখ্যা ৩৬২টি। এরমধ্যে আন্তঃনগর ট্রেনের সংখ্যা ৯৬টি। এ দিকে বন্ধ হয়ে যাওয়া স্টেশন চালুসহ এখন পর্যন্ত সর্বমোট স্টেশন রয়েছে ৪০০টি।

বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. শামসুজ্জামান বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, যাত্রীসেবা উন্নত করার জন্য নতুন নতুন কোচ বিদেশ থেকে নিয়ে আসা হচ্ছে। নতুন আমদানিকৃত কোচ সমূহের অনেক বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এগুলো একেবারেই আধুনিক কোচ। এসব কোচে যে ধরনের সুযোগ-সুবিধা থাকবে তার মধ্যে হলো—যাত্রী সাধারণের জন্য আধুনিক মানসম্মত চেয়ার, বার্থ, স্টেয়ার, পার্সেল রেক, টিভি মনিটর হ্যাঙ্গার, ওয়াইফাই রাউটার হ্যাঙ্গার,মোবাইল চার্জারসহ নানা ধরনের সুযোগ সুবিধা।

সুত্র:বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম,২০ আগস্ট, ২০১৯

About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।