আন্তর্জাতিক

মিয়ানমারের অনুমতি মেলেনি গুনদুম পর্যন্ত রেলপথ হচ্ছে না!

ইসমাইল আলী: চট্টগ্রামের দোহাজারী থেকে কক্সবাজার হয়ে মিয়ানমারের সীমান্ত গুনদুম পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণে প্রকল্প নেয়া হয় ২০১০ সালে। তবে প্রকল্পটির আওতায় দুই প্যাকেজের ঠিকাদার নিয়োগ করা হয় ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে। ওই দুই প্যাকেজে দোহাজারি থেকে রামু…

Read More

বেনাপোল দিয়ে রেলপথে ৫ লাখ টনের বেশি পণ্য আমদানি

নিউজ ডেস্ক: বেনাপোল দিয়ে রেলপথে ভারত থেকে পণ্য আমদানি বেড়েছে। গত ২০২০-২১ অর্থবছরে বেনাপোল দিয়ে রেলপথে ৫ লাখ ৪০ হাজার ৬৫৯ টন বিভিন্ন ধরনের পণ্য আমদানি হয়েছে। এ সময় রেল ভাড়া বাবদ সরকারের রাজস্ব আয় হয়েছে ৩১ কোটি ৪০ লাখ ৭৯ হাজার ৬৩০ টাকা। এর আগে ২০১৯-২০ অর্থবছরে এ পথে ভারত থেকে পণ্য আমদানির পরিমাণ ছিল ১ লাখ ৮৪ হাজার ৭৩ টন। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে আমদানি বেড়েছে ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৫৮৬ টন। আগের অর্থবছরে রেলের ভাড়া বাবদ সরকারের রাজস্ব আদায় হয়েছিল ৮ কোটি ৮৮ লাখ ২৬ হাজার টাকা। ব্যবসায়ী ও সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, স্থলপথে বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ভারতের বনগাঁ কালিতলা ট্রাক পার্কিং সিন্ডিকেটের কাছে বাংলাদেশী ব্যবসায়ীরা জিম্মি হয়ে পড়েছিলেন। নানা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে সিরিয়ালের নামে ট্রাকপ্রতি ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করা হতো। করোনার শুরুতে এ সংকট আরো বেড়ে যায়। এতে আমদানি খরচ বেড়ে যাওয়ায় প্রভাব পড়ে দেশীয় বাজারে। এ পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ৪ জুন থেকে সরকার রেলে সব ধরনের পণ্যের আমদানি বাণিজ্যের অনুমতি দেয়। আগে রেলপথে পাথর ও জিপসাম জাতীয় পণ্য আমদানি হতো। তবে বর্তমানে গার্মেন্ট, কেমিক্যাল, খাদ্যদ্রব্যসহ সব ধরনের পণ্য আসছে। ব্যবসায়ীরা বলছেন, এ পথে আমদানি খরচ সাশ্রয় ও নিরাপদ। যে কারণে দিন দিন ব্যবসায়ীরা রেলপথে বাণিজ্যে ঝুঁকতে থাকেন। আগে মাসে চার থেকে পাঁচটি ওয়াগনে পণ্য আমদানি হতো। বর্তমানে প্রতিদিন কার্গো রেল, সাইডোর কার্গো রেল ও প্যার্সেল ভ্যানের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের পণ্য আমদানি হচ্ছে। বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, বর্তমানে রেলপথে সব ধরনের পণ্য আমদানি সচল রয়েছে। এতে গত বছরের তুলনায় এ বছর আমদানি বেড়েছে। পাশাপাশি রেল খাতে সরকারের চার গুণ রাজস্ব বেশি আদায় হয়েছে। বেনাপোল কাস্টম হাউজের কমিশনার মো. আজিজুর রহমান বলেন, রেলপথে আমদানিতে সময় ও খরচ কমেছে। নিরাপত্তা বেড়েছে। ভারত থেকে স্থলপথের পাশাপাশি রেলযোগে পণ্য এলে দেশের রেল খাতেও উন্নয়ন হবে। রেলে ভারতে পণ্য রফতানির বিষয়টি আমাদের বিবেচনায় রয়েছে। রেলওয়ের বেনাপোল স্টেশন মাস্টার মো. শাহিদুজ্জামান জানান, বর্তমানে বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে স্থলপথের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রেলপথেও পণ্য আমদানি হচ্ছে। তবে বন্দরের রেল ইয়ার্ড না থাকায় পণ্য রাখতে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। এরই মধ্যে বন্দরে দুটি রেল ইয়ার্ড নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। চলছে বেনাপোল থেকে পেট্রাপোল পর্যন্ত ব্রডগেজ লাইনের সম্প্রসারণ কাজ। এসব কাজ শেষ হলে এ পথে বাণিজ্য আরো বাড়বে। সূত্র:বণিক বার্তা, জুলাই ১৯, ২০২১


ভারত-নেপাল-ভুটান রেল সংযোগে ব্যয় দ্বিগুণ হচ্ছে

মফিজুল সাদিক : ভারতের সঙ্গে রেল সংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে চিলাহাটি এবং চিলাহাটি সীমান্তের মধ্যে ব্রডগেজ রেলপথ নির্মাণ করা হচ্ছে।   মূল প্রকল্পের ব্যয় ছিল ৮০ কোটি ১৬ লাখ ৯৪ হাজার টাকা।নতুন করে প্রকল্পের মোট ব্যয়…


নতুন ট্রেন মিতালী এক্সপ্রেসের উদ্বোধন

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে নতুন যাত্রীবাহী ট্রেন মিতালী এক্সপ্রেসের উদ্বোধন করা হয়েছে। শনিবার (২৭ মার্চ) সন্ধ্যা ৬টা ৩৬ মিনিটে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ট্রেনটি যৌথভাবে উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ সফররত ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র…


২৭ মার্চ উদ্বোধন করবেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী

কথা ছিল ঢাকা থেকে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়ি পর্যন্ত যাত্রীবাহী ট্রেন চালানোর। তবে শেষমেশ ট্রেনটির পরিধি জলপাইগুড়িতেই সীমিত থাকছে। ২৭ মার্চ বাংলাদেশ ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী ‘মিতালী এক্সপ্রেস’ নামের ট্রেনটি যৌথভাবে চালুর ঘোষণা দেবেন।তবে ট্রেনটি এখনই চালু হচ্ছে না। করোনা মহামারীর কারণে বর্তমানে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে নতুন ট্রেনটি যাত্রী পরিবহন শুরু করবে। গতকাল রেল ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। সংবাদ সম্মেলনে রেলপথমন্ত্রী বলেন, মিতালী এক্সপ্রেস সপ্তাহে দুইদিন চলাচল করবে। ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট রেলওয়ে স্টেশন থেকে প্রতি সোম ও বৃহস্পতিবার ট্রেনটি ভারতের নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশনের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। অন্যদিকে নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন থেকে প্রতি রবি ও বুধবার ঢাকার উদ্দেশে আসবে মিতালী এক্সপ্রেস। ঢাকা থেকে মিতালী এক্সপ্রেসের এসি বার্থে করে জলপাইগুড়ি পর্যন্ত যেতে একজন যাত্রীর খরচ হবে বাংলাদেশী মুদ্রায় ৪ হাজার ৯০৫ টাকা। একইভাবে এসি সিটের ভাড়া ঠিক করা হয়েছে ৩ হাজার ৮০৫ টাকা। আর এসি চেয়ারের ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ২ হাজার ৭০৫ টাকা। অন্যদিকে চিলাহাটী থেকে জলপাইগুড়ির যাত্রীদের জন্য শুধু এসি চেয়ারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। সেখান থেকে ভাড়া ধরা হয়েছে ১ হাজার ২৩৫ টাকা। সব ধরনের ভাড়ার সঙ্গে রেলওয়ের প্রাপ্য ভাড়ার পাশাপাশি ভ্যাট ও ট্রাভেল ট্যাক্সও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। শিলিগুড়ি থেকে ঢাকায় আসার সময় মিতালী এক্সপ্রেসে ১৪৪টি এসি সিট ও ৩১২টি এসি চেয়ার থাকবে। অন্যদিকে ঢাকা থেকে শিলিগুড়ি যাওয়ার সময় ট্রেনটিতে ৯৬টি বার্থ ও ৩১২টি এসি চেয়ার থাকবে। ট্রেনটি জলপাইগুড়ি থেকে ছাড়বে দুপর ১২টা ১০ মিনিটে। আর ঢাকায় এসে পৌঁছাবে রাত ১০টা ৩০ মিনিটে। একইভাবে ঢাকা থেকে রাত ৯টা ৫০ মিনিটে ছেড়ে সকাল ৭টা ৫ মিনিটে জলপাইগুড়িতে পৌঁছাবে। ইমিগ্রেশনের জন্য ঢাকা রেলওয়ে স্টেশনের পাশাপাশি চিলাহাটী স্টেশনকেও বেছে নেয়ার কথা জানান মন্ত্রী। তিনি বলেন, ঢাকা থেকে যারা সরাসরি শিলিগুড়ি যাবেন, তাদের ইমিগ্রেশনের যাবতীয় কাজ ঢাকাতেই করা হবে। তবে উত্তরাঞ্চলের অনেক মানুষ যেন সহজেই ট্রেনটি ব্যবহার করতে পারেন, সেজন্য চিলাহাটী স্টেশনেও ইমিগ্রেশনের ব্যবস্থা রাখা হবে। ঢাকা থেকে চিলাহাটী হয়ে শিলিগুড়ি পর্যন্ত ১০টি কোচের একটি র্যাক নিয়মিত চলাচল করবে। এই ১০টি কোচের যাত্রীদের ইমিগ্রেশন ঢাকায় হবে। অন্যদিকে যারা চিলাহাটী থেকে ট্রেনে উঠবেন, তাদের জন্য চাহিদা সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় সংখ্যক কোচ সেখানেই জুড়ে দেয়া হবে। শিলিগুড়ি থেকে আসার সময় অতিরিক্ত জুড়ে দেয়া কোচগুলো আবার চিলাহাটী স্টেশনে রেখে দেয়া হবে। প্রাথমিকভাবে ভারতীয় কোচ দিয়ে ট্রেনটি পরিচালনা করা হবে। তবে বাংলাদেশ অংশে বাংলাদেশ রেলওয়ের ইঞ্জিন ও ভারতের অংশে ভারতীয় রেলওয়ের ইঞ্জিন ব্যবহার করা হবে। সবমিলে ট্রেনটি ৫৯৫ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেবে। এর মধ্যে বাংলাদেশ অংশে ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট রেলওয়ে স্টেশন থেকে চিলাহাটী স্টেশন পর্যন্ত ৫৩৪ কিলোমিটার এবং চিলাহাটী থেকে নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন পর্যন্ত পাড়ি দিতে হবে আরো ৬১ কিলোমিটার রেলপথ। সূত্র:বণিক বার্তা, মার্চ ২৩, ২০২১


তিব্বতে প্রথম ইলেকট্রিক বুলেট ট্রেন চালু হচ্ছে

তিব্বতে উচ্চগতির বুলেট ট্রেন ২০২১ সালের জুলাইয়ের মধ্যেই চালু করবে চীন। ৪৩৫ কিলোমিটার লম্বা এই রুটটিতে তিব্বতের প্রথম ইলেকট্রিক ট্রেন সেবা শুরু হতে চলেছে। এটি তিব্বতের লাসা থেকে ভারতের অরুণাচল সীমান্ত ঘেঁষে কাছে চীনের নিংচি…


রেলওয়ের উন্নয়নে যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতা চাইলেন রেলমন্ত্রী

বাংলাদেশ রেলওয়ের উন্নয়নে যুক্তরাষ্ট্রকে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। বুধবার ( ১০ মার্চ ) রেল ভবনে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার রেলমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য স্বাক্ষাতকালে এই আহ্বান জানান মন্ত্রী।বাংলাদেশ রেলওয়ের লোকো…


ঢাকা-নিউ জলপাইগুড়ি ট্রেন ভাড়া ২২০০ টাকা

ঢাকা থেকে চিলাহাটি হলদিবাড়ি দিয়ে ভারতের নিউ জলপাইগুড়ি পর্যন্ত চালু হতে যাওয়া ট্রেনের ভাড়া ২ হাজার ২০০ টাকা হবে বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন। আগামী ২৬ মার্চ থেকে ট্রেনটি চালু হবে।  রবিবার (৭…


ঢাকা – কাঠমান্ডুর সরাসরি ট্রেন সার্ভিস চালু করা সম্ভব

তৌহিদুর রহমান :  ঢাকা – কাঠমান্ডুর মধ্যে সরাসরি ট্রেন সার্ভিস চালু করা সম্ভব বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত নেপালের রাষ্ট্রদূত ডা. বনশিধর মিশ্র। এই ট্রেন সার্ভিসের নাম হতে পারে ঢাকা-কাঠমান্ডু মৈত্রী এক্সপ্রেস। ঢাকাস্থ নেপাল দূতাবাসে বাংলানিউজকে…


২৬ মার্চ চালু হচ্ছে ঢাকা-জলপাইগুড়ি ট্রেন চলাচল

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট থেকে পশ্চিমবঙ্গের নিউ জলপাইগুড়ি যাত্রীবাহী রেল সেবা শুরুর পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। বুধবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ ও ভারতের দুই দেশের রেল কর্মকর্তাদের…