শিরোনাম

লিজ চুক্তির মেয়াদ বেড়েছে ৫৫ ট্রেনের

লিজ চুক্তির মেয়াদ বেড়েছে ৫৫ ট্রেনের

জেসমিন মলি:
ট্রেন পরিচালনায় বেসরকারি ব্যবস্থাপনা থেকে বেরিয়ে আসার কথা বলে উল্টোপথে হাঁটছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। এরই মধ্যে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত ৫৫টি ট্রেনের লিজ চুক্তির মেয়াদ বাড়িয়েছে সংস্থাটি। নতুন চুক্তি অনুযায়ী এসব ট্রেনের কোনো কোনোটি ২০২৫ সাল পর্যন্ত বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত হবে।

সম্প্রতি রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির পক্ষ থেকে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ট্রেন পরিচালনায় স্বাক্ষরিত চুক্তির নবায়ন না করা ও মেয়াদ উত্তীর্ণের আগে লিজ নবায়নকৃত ট্রেনের তালিকা দিতে সুপারিশ করা হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে কমিটিতে একটি প্রতিবেদন জমা দেয় সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়। ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশ রেলওয়ের বিভিন্ন ধরনের ট্রেন পরিচালনার জন্য বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে মূল চুক্তির পর বছরে ১০ শতাংশ লাইসেন্স ফি বৃদ্ধি সাপেক্ষে সংশোধিত চুক্তি করা হয়েছে। মেয়াদ বৃদ্ধিসংক্রান্ত সংশোধিত ও বিদ্যমান এসব চুক্তির মেয়াদ শেষ হলে আর নবায়ন করা হবে না। অন্যদিকে চুক্তির মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার আগে লিজের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে ৫৫টি ট্রিপের (প্রত্যেকটি ট্রিপকে একটি ট্রেন হিসেবে ধরে)।

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ঈশ্বরদী-ঢাকা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ রুটে চলাচলকারী ৫৫১/৫ ও ৬/৫৫৪ রাজশাহী কমিউটার ও লোকাল ট্রেনগুলো ২০১৩ সালে লিজ দেয়া হয়, যার মেয়াদ ছিল ২০১৭ সাল পর্যন্ত। দুই দফা মেয়াদ বাড়ানোর ফলে ওই রুটে চলাচলকারী ট্রেনের লিজের মেয়াদ শেষ হবে ২০২১ সালের ৩১ মে।

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা রুটে চলাচলকারী ২১১-২২২ ও ২২৫-২৩৮ লোকাল ট্রেন প্রথম লিজ দেয়া হয় ২০১১ সালে। তিন দফা মেয়াদ বাড়ানোর পর লিজের মেয়াদ শেষ হবে ২০২১ সালের জুনে।

একইভাবে ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ বাজার-ঢাকা রুটে ৫১/৫২ জামালপুর কমিউটার ট্রেন ২০১১ সালে লিজ দেয়া হয়। দুই দফা মেয়াদ বাড়ানোর ফলে এ রুটে চলাচলকারী ট্রেনের লিজের মেয়াদ শেষ হবে ২০২১ সালের ৩১ মে।

ঢাকা-আখাউড়া-ঢাকা ও ঢাকা-ব্রাহ্মণবাড়িয়া-ঢাকা রুটে ৩৩/৩৬, ৩৪/৩৫ তিতাস কমিউটার ট্রেন ২০১৫ সালে লিজ দেয়া হয়। তিন দফা মেয়াদ বাড়ানোর পর এসব ট্রেনের লিজের মেয়াদ শেষ হবে ২০২৫ সালের ডিসেম্বরে। ঢাকা-ময়মনসিংহ-ঢাকা ও ঢাকা-ঝারিয়াঝাঞ্জাইল-ঢাকা রুটে ৪৯/৫০ নং বলাকা কমিউটার ট্রেনের তিন দফা মেয়াদ বাড়ানোর ফলে মেয়াদ শেষ হবে ২০২৫ সালের ডিসেম্বরে।

ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ বাজার-ঢাকা রুটে চলাচলকারী ৪৭/৪৮ নং দেওয়ানগঞ্জ কমিউটার ট্রেনগুলো লিজ দেয়া হয় ২০১৬ সালে। তিন দফা মেয়াদ বাড়ানোর পর এসব ট্রেনের লিজের মেয়াদ শেষ হবে ২০২২ সালের এপ্রিলে। তিন দফায় বাড়ানোর পর ঢাকা-মোহনগঞ্জ-ঢাকা রুটে চলাচলকারী ৪৩/৪৪ নং মহুয়া কমিউটার ট্রেনগুলোর লিজের মেয়াদ শেষ হবে ২০২৪ সালের এপ্রিলে।

লিজের মেয়াদ দুই দফা বাড়ানোর পর খুলনা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রহনপুর রুটে চলাচলকারী ১৫/৫৮৫/১৬ নং ট্রেনগুলোর মেয়াদ শেষ হবে ২০২২ সালে মে মাসে।

দুই দফা বাড়ানোর পর খুলনা-গোয়ালন্দঘাট-খুলনা রুটে চলাচলকারী ২৫/২৬ নং নকশীকাঁথা এক্সপ্রেসের লিজের মেয়াদ শেষ হবে ২০২২ সালের মে মাসে। একইভাবে খুলনা-পার্বতীপুর-খুলনা ও পার্বতীপুর-চিলাহাটি-পার্বতীপুর রুটে চলাচলকারী ২৩/২৪ নং রকেট মেইল ও ২৭/২৮ নং চিলাহাটি এক্সপ্রেসের লিজের মেয়াদ শেষ হবে ২০২২ সালের মে মাসে।

তিন দফা বাড়ানোর পর চট্টগ্রাম-চাঁদপুর-চট্টগ্রাম রুটে চলাচলকারী ২৯/৩০ নং সাগরিকা কমিউটার ট্রেনগুলোর লিজের মেয়াদ শেষ হবে ২০২৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে।

আগামী বছরের পর থেকে এভাবে আর কোনো ট্রেন লিজ না দেয়ার জন্য রেলপথ মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। রেলপথ মন্ত্রণালয় সংসদীয় কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী জানান, ২০২০ সালের পর থেকে আর কোনো ট্রেন লিজ না দেয়ার বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করা হয়েছে। এছাড়া রেলওয়ের নিজস্ব জনবল দিয়ে রেল পরিচালনার বিষয়েও সুপারিশ করেছে কমিটি।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, অদক্ষতা আর অব্যবস্থাপনার কারণে রেলওয়ে খাতে প্রতি বছর বিপুল লোকসান হয়। তবে বেসরকারি খাতের উদ্যোক্তাদের ট্রেন পরিচালনার আগ্রহই বুঝিয়ে দেয় তাদের মুনাফার বিষয়টি। শুধু তদারকি জোরদারের মাধ্যমেই আয় বাড়িয়েছে লিজ নেয়া বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো। আন্তঃনগর বাদে ৭৩টি লোকাল ট্রেন এখন পরিচালিত হচ্ছে বেসরকারি খাতে। বেসরকারি খাতে ছেড়ে দেয়া এসব ট্রেন থেকে লিজগ্রহীতারা বিপুল অর্থ আয় করছে। কিন্তু লিজ প্রদানের সময় চুক্তিতে বাংলাদেশ রেলওয়ের আরোপিত শর্তের অধিকাংশই লিজগ্রহীতার পক্ষে যাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সরকার।

সুত্র:বণিক বার্তা, মে ১১, ২০১৯


About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।