প্রতিদিন কমছে ট্রেনের যাত্রীর সংখ্যা

প্রতিদিন কমছে ট্রেনের যাত্রীর সংখ্যা

সাইদ সবুজ :

 দীর্ঘ ৬৭ দিন বন্ধ থাকার পর ৩১ মে থেকে শতভাগ অনলাইন টিকিটিংয়ের মাধ্যমে ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে যাত্রীবাহী ট্রেন সার্ভিস চালু করে বাংলাদেশ রেলওয়ে। কিন্তু স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেন পরিচালিত হলেও ক্রমেই কমছে যাত্রীর সংখ্যা। ইতোমধ্যে যাত্রী সংকটে সোনার বাংলা ও উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেন দুটি বন্ধ করে দিয়েছে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল।


রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল সূত্রে যানা যায়, ৩১ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে ঢাকা এবং অন্যান্য গন্তব্যে আন্তঃনগর ট্রেনে যাত্রী পরিবহন করে ৩২ হাজার ৪৩৫ জন। এর বিপরীতে ভাড়া বাবদ রেলওয়ে আয় করে ৬২ লাখ ৯৭ হাজার ৪৮৬ টাকা। যদিও কোটা অনুযায়ী বিক্রির হার অনেক কম ছিল। এছাড়া ফেনী, লাকসাম ও কুমিল্লা স্টেশন মিলে রেলওয়ে আয় করে ৭২ লাখ ৭৩ হাজার ৬০১ টাকা। তাতে যাত্রী পরিবহন করেছিল ৩৬ হাজার ৪৯৬ জন।


এদিকে ১৬ দিনের যাত্রী পরিবহনের পরিসংখ্যান বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, ৩১ মে থেকে যাত্রী পরিবহন শুরু হয়। প্রথম দিনে চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে বিভিন্ন গন্তব্যে যাত্রী পরিবহন করে সুবর্ণ এক্সপ্রেস (৭০১), সোনার বাংলা এক্সপ্রেস (৭৮৭) ও উদয়ন এক্সপ্রেস (৭২৩)। এর মধ্যে ৩১ মে ৩৮৭ যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে চট্টগ্রাম ছেড়ে যায় সুবর্ণ এক্সপ্রেস। এর বিপরীতে আয় হয় এক লাখ ৮৭ হাজার ১৮০ টাকা। যদিও কোটা ছিল ৪৫৪ জনের। একই দিন সোনার বাংলা এক্সপ্রেস চট্টগ্রাম-ঢাকা যাত্রী পরিবহন করে ২১৬ জন (কোটা-২৯৭)। এর বিপরীতে আয় করে এক লাখ ১৯ হাজার ৫৭৯ টাকা। আর উদয়ন এক্সপ্রেস যাত্রী পরিবহন করে ২৮০ জন (কোটা-৩১৮)। বিপরীতে আয় হয় এক লাখ পাঁচ হাজার ৯১৫ টাকা। তবে ওইদিন পাহাড়িকা এক্সপ্রেস চলাচল করেনি।


দ্বিতীয় দিন সুবর্ণ এক্সপ্রেস বন্ধ থাকলেও আগের দিনের তুলনায় বেশি যাত্রী নিয়ে সোনার বাংলা ও উদয়ন এক্সপ্রেস চট্টগ্রাম স্টেশন ছেড়ে যায়। তারপর ৩ জুন থেকে মেঘনা এক্সপ্রেসসহ ছয়টি ট্রেন চলাচল শুরু করে। কিন্তু সুবর্ণ ও সোনার বাংলা এক্সপ্রেসে আগের মতো যাত্রী ছিল না। ওইদিন সুবর্ণ যাত্রী পরিবহন করে ৩১৫ জন এবং সোনার বাংলা যাত্রী পরিবহন করে ১৯৩ জন। বাকি ট্রেনগুলোতেও তুলনামূলক যাত্রী ছিল। মূলত তারপর থেকে যাত্রী পরিবহন আস্তে আস্তে কমতে শুরু করে। ঠিক ১৫ দিন পরে এসে দেখা যায়, ৪৫৪ কোটার মধ্যে সুবর্ণ এক্সপ্রেস যাত্রী পরিবহন করেছে মাত্র ১৪৬ জন এবং সোনার বাংলা যাত্রী পরিবহন করেছে ১৩২ জন। এছাড়া অন্যান্য ট্রেনগুলোতেও যাত্রীর পরিমাণ আগের তুলনায় অর্ধেক ছিল।


এদিকে বন্ধ হওয়া উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রী পরিবহনের তথ্য বিশ্লেষণ, লাকসাম স্টেশনে ৪ জুন থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত ২০ থেকে ২৪ জনের বেশি যাত্রী পায়নি ট্রেনটি। আর কুমিল্লা স্টেশনে ৩২ জনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল যাত্রী পরিবহনের সংখ্যা। তারপর যাত্রী সংকটকে সামনে এনে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল ২০ জুন সোনার বাংলা এক্সপ্রেস এবং ২১ জুন উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেন সাময়িক বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়।
এ বিষয়টি রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (ডিসিও) আনসার আলী শেয়ার বিজকে বলেন, দেশে করোনার প্রভাব বাড়ায় ট্রেনে যাত্রীর পরিমাণ দিনদিন কমছে। তাই আর্থিক ক্ষতির কথা বিবেচনা করে ইতোমধ্যে দুটি ট্রেন সাময়িক বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলওয়ে। পরবর্তী নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত এগুলো বন্ধ থাকবে। তবে বাকি ট্রেনগুলো নিয়মিত চলাচল করবে।


উল্লেখ্য, ৩১ মে ও ৩ জুন থেকে দুই দফায় ৩৮ জোড়া যাত্রীবাহী ট্রেন চালু হয়। এর মধ্যে ৩১ মে চলাচলকারী ৮ জোড়া ট্রেনের মধ্যে রয়েছে কালনী এক্সপ্রেস (৭৭৩/৭৭৪), ঢাকা-বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রুটের পঞ্চগড় এক্সপ্রেস (৭৯৩/৭৯৪), ঢাকা-রাজশাহী রুটের বনলতা এক্সপ্রেস (৭৯১/৭৯২), ঢাকা-লালমনিরহাট রুটের লালমনি এক্সপ্রেস (৭৫১/৭৫২), চট্টগ্রাম-সিলেট-চট্টগ্রাম রুটের উদয়ন ও পাহাড়িকা এক্সপ্রেস (৭২৩/৭২০) এবং ঢাকা-খুলনা রুটের চিত্রা এক্সপ্রেস (৭৬৩/৭৬৪) ট্রেনগুলো।


আর ৩ জুন থেকে চলাচলকারী ১১ জোড়া ট্রেনের মধ্যে রয়েছে ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ বাজার রুটের তিস্তা এক্সপ্রেস (৭০৭/৭০৮), ঢাকা-বেনাপোল রুটের বেনাপোল এক্সপ্রেস (৭৯৫/৭৯৬), ঢাকা-চিলাহাটি রুটের নীলসাগর এক্সপ্রেস (৭৬৫/৭৬৬), খুলনা-চিলাহাটি রুটের রূপসা এক্সপ্রেস (৭২৭/৭২৮), খুলনা-রাজশাহী রুটের কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস (৭১৫/৭১৬), রাজশাহী-গোয়ালন্দঘাট রুটের মধুমতি এক্সপ্রেস (৭৫৫/৭৫৬), চট্টগ্রাম-চাঁদপুর রুটের মেঘনা এক্সপ্রেস (৭২৯/৭৩০), ঢাকা-কিশোরগঞ্জ রুটের কিশোরগঞ্জ এক্সপ্রেস (৭৮১/৭৮২) এবং ঢাকা-নোয়াখালী রুটের উপকূল এক্সপ্রেস (৭১১/৭১২) (বর্তমানে বন্ধ আছে), ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ বাজার রুটের ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস (৭৪৩/৭৪৪) এবং ঢাকা-কুড়িগ্রাম রুটের কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস (৭৯৭/৭৯৮) ট্রেনগুলো।

সূত্র:শেয়ার বিজ, জুন ২৩, ২০২০

About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।