উল্লাপাড়ায় লাইনচ্যুত রংপুর এক্সপ্রেস: ট্রেন দুর্ঘটনাকে নাশকতা হিসেবে দেখছেন রেলমন্ত্রী

উল্লাপাড়ায় লাইনচ্যুত রংপুর এক্সপ্রেস: ট্রেন দুর্ঘটনাকে নাশকতা হিসেবে দেখছেন রেলমন্ত্রী

উল্লাপাড়ায় রংপুর এক্সপ্রেসের বগিতে আগুন লাগার ঘটনাকে নাশকতা হিসেবে সন্দেহ করছেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। তিনি বলেন, লাইনচ্যুত হওয়ার পর ইঞ্জিনের আগুন শীততাপ নিয়ন্ত্রিত বগিতে কীভাবে ঢুকল এটা ভাবনার বিষয়। ২০১৪ সালে তথাকথিত আন্দোলনের নামে এখানে আগুন দিয়ে একটি ট্রেন পুড়িয়ে দেয়া হয়েছিল। এমন ঘটনা পুনরাবৃত্তি ঘটেছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে বৃহস্পতিবার ওই লাইনে সংস্কার কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের মধ্যে দু’জনকে আটক করা হয়েছে। ওই পয়েন্টে ফিসপ্লেট খুলে রাখায় এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ নাশকতার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে তাদের আটক করা হয়।

দুর্ঘটনার ২৬ ঘণ্টা পরও লাইন মেরামত ও সংস্কারের কাজ শেষ না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে রেলমন্ত্রী সুজন বলেন, ট্রেন দুর্ঘটনার পেছনে কোনো ধরনের ষড়যন্ত্র বা নাশকতা আছে কিনা বা কারও গাফিলতি আছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

শুক্রবার বিকালে দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, নাশকতার প্রমাণ পেলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

দুর্ঘটনাকবলিত রেললাইন খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে মেরামত করে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, জয়দেবপুর থেকে রাজশাহী ও লালমনিরহাট পর্যন্ত ডুয়েল রেললাইনের কাজ শিগগিরই শুরু হবে। আগামী বছরের মধ্যে কাজ শেষ হলে এ রুটে দুর্ঘটনা কমে আসবে। একই সঙ্গে রেল যোগাযোগ আরও উন্নত হবে।

তিনি বলেন, সিগন্যালম্যানের গাফিলতি আছে কিনা, তা খতিয়ে দেখতে দু’জনকে আটক করা হয়েছে।

এ সময় তার সঙ্গে রেল সচিব মোফাজ্জল হোসেন, অতিরিক্ত সচিব ফারুকুজ্জামান, পশ্চিম রেলের জেনারেল ম্যানেজার মিহির কান্তি ভৌমিক, জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহমেদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আরিফুজ্জামান, উল্লাপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম প্রমুখ ছিলেন।

এর আগে ঘটনাস্থলে রেল সচিব মোফাজ্জল হোসেন বলেন, দুর্ঘটনার কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না। ট্রেন দুর্ঘটনার পর রেল বিভাগের পক্ষ থেকে তিনটি এবং জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সব কমিটি কাজ শুরু করেছে। তাদের প্রতিবেদন পাওয়ার পর দুর্ঘটনার সঠিক কারণ জানা যাবে। এতে কারও গাফিলতি ধরা পড়লে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে দুর্ঘটনাকবলিত লাইনে বৃহস্পতিবার যারা সংস্কার কাজ করেছিলেন তাদের মধ্যে দু’জনকে আটক করা হয়েছে। তারা হলেন- উল্লাপাড়া রেলস্টেশনের খালাসি আরিফুল ইসলাম ও মিস্ত্রি আবদুর রাজ্জাক।

রেলের একটি সূত্রের ধারণা- সংস্কারের কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের কেউ ওই পয়েন্টে ফিসপ্লেট খুলে রেখেছিল। এ কারণে দুর্ঘটনা ঘটে। এ নাশকতার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে দু’জনকে আটক করা হয়েছে।

সুত্র:যুগান্তর, ১৬ নভেম্বর ২০১৯

About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।