ভুল পরিকল্পনায় দুই দফায় ব্যয় বাড়ছে ২৫৪০ কোটি টাকা

ভুল পরিকল্পনায় দুই দফায় ব্যয় বাড়ছে ২৫৪০ কোটি টাকা

ইসমাইলআলীখুলনা-মোংলা বন্দর রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পটি নেয়া হয় ২০১০ সালের ডিসেম্বরে। তিন বছরের মধ্যে নির্মাণ শেষ করার কথা থাকলেও গত আগস্ট পর্যন্ত কাজ হয়েছে ৮৩ শতাংশ। যদিও পরিকল্পনার ত্রুটিতে ঠিকাদার নিয়োগের আগেই ২০১৫ সালের মে মাসে প্রকল্পটি একবার সংশোধন করা হয়। তবে নির্মাণ শুরুর পর মূল রেলপথ ও রূপসা রেল সেতুর নকশায় ত্রুটি ধরা পড়ে। এগুলো সংশোধন করতে গিয়ে নির্মাণব্যয় আরও বেড়ে গেছে। এতে প্রকল্প ব্যয় দ্বিতীয় দফা বাড়ানো হচ্ছে।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত খুলনা-মোংলা বন্দর রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পটির প্রজেক্ট ইমপ্লিমেন্টেশন কমিটির (পিআইসি) সভায় দ্বিতীয় দফা ব্যয় বৃদ্ধির তথ্য তুলে ধরা হয়। এতে বলা যায়, ভারতের ঋণে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে খুলনা-মোংলা বন্দর রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পটি। ২০১০ সালের ১২ ডিসেম্বর এটি অনুমোদন করে একনেক (জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি)। সে সময় ব্যয় ধরা হয়েছিল ১ হাজার ৭২১ কোটি ৩৯ লাখ।

২০১৫ সালের মে মাসে প্রকল্পটির প্রথম সংশোধিত ডিপিপি (উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবনা) অনুমোদন করা হয়। এতে ব্যয় বেড়ে দাঁড়ায় ৩ হাজার ৮০১ কোটি ৬১ লাখ টাকা। আর সর্বশেষ হিসাবে প্রকল্প ব্যয় দাঁড়াচ্ছে ৪ হাজার ২৬০ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। অর্থাৎ দুই দফা মিলিয়ে নির্মাণব্যয় বেড়ে যাচ্ছে দুই হাজার ৫৩৯ কোটি ৫০ লাখ টাকা বা ১৪৭ দশমিক ৫৩ শতাংশ।

ব্যয় বৃদ্ধির কারণ সম্পর্কে বলা হয়েছে, তিনটি প্যাকেজের আওতায় বাস্তবায়ন করা হচ্ছে খুলনা-মোংলা বন্দর রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পটি। এর মধ্যে প্রথম প্যাকেজের (ডব্লিউডি-১) আওতায় রয়েছে ৬০ কিলোমিটার রেলপথ নির্মাণ, দ্বিতীয় প্যাকেজের (ডব্লিউডি-২) আওতায় পাঁচ দশমিক ১৩ কিলোমিটার দীর্ঘ রূপসা রেল সেতু নির্মাণ ও তৃতীয় প্যাকেজের (ডব্লিউডি-৩) আওতায় ৬০ কিলোমিটার রেলপথে সিগন্যালিং ও টেলিকমিউনিকেশন ব্যবস্থা স্থাপন।

দ্বিতীয় প্যাকেজের আওতায় রূপসা রেল সেতু নির্মাণে নকশা জটিলতা দেখা দেয়। এতে রেল সেতুর পাইল লোড টেস্ট করে দেখা যায়, আগের ডিজাইনে পাইল নির্ধারিত লোড বহনে সক্ষম নয়। ফলে পরামর্শক কর্তৃক পাইলের গভীরতা বাড়ানো হয়। এতে প্যাকেজটির ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে। আর প্রথম প্যাকেজটির আওতায় ৩১টি ছোট ও মাঝারি সেতু এবং ১০৭টি কালভার্ট নির্মাণ করা হয়েছে। এগুলো নির্মাণ করতে গিয়ে মাটির গুণাগুণ খারাপ থাকায় পাইলের দৈর্ঘ্য বাড়াতে হয়েছে। এতে প্রথম প্যাকেজের ব্যয়ও বৃদ্ধি পেয়েছে।

এদিকে প্রতিটি স্কিউ (কিছুটা তির্যক) রেল সেতুকে সোজা করে নির্মাণ করায় লাইনার ওয়াটারওয়েকে কভার করার জন্য সেতুগুলোর স্প্যান বাড়াতে হয়েছে। এছাড়া আরডিএসও স্ট্যান্ডার্ড অনুসরণ করে নির্মাণকালে কমানোর জন্য কিছু থ্রো টাইপ সেতুকে প্লেট গ্রিডার সেতুতে নির্মাণ করায় সেতুর লেভেল বেড়ে গেছে। ফলে এ উচ্চ লেভেলকে মেলানোর জন্য দুই পাশে ফরমেশন লেভেল/অ্যামব্যাংকমেন্ট প্রোফাইলের উচ্চতা বেড়ে গেছে। এতে অ্যামব্যাংকমেন্ট ফাইলের পরিমাণ বেড়েছে।

ব্যয় বৃদ্ধি অন্য কারণের মধ্যে রয়েছে কিছু কিছু ব্রিজকে এমনভাবে ডিজাইন করতে হয়েছে যাতে খালের পাশের রাস্তা ব্রিজের নিচে রাখা যায়। এতে রেল সেতুর টপ লেভেল বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে সেতুর ফরমেশন লেভেল ও সংযোগ সড়ক বৃদ্ধি পেয়েছে। আবার অ্যামব্যাংকমেন্ট নির্মাণের সময় কিছু জায়গায় সফট সয়েল পাওয়া যায়। সেগুলো অপসারণ করে বালি দিয়ে তা প্রতিস্থাপন করা হয়। নকশা রিভিউয়ের সময় ভবনগুলোর পাইলের দৈর্ঘ্য বেড়েছে। এছাড়া শিডিউলড আইটেমের একক দর বৃদ্ধি পেয়েছে। পাশাপাশি নন-শিডিউলড আইটেম যুক্ত হয়েছে। সব মিলিয়ে প্রকল্প ব্যয় বেড়ে গেছে।

জানতে চাইলে প্রকল্প পরিচালক মো. আরিফুজ্জামান শেয়ার বিজকে বলেন, প্রথমে অনেকটা অনুমানের ভিত্তিতে প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়েছিল। পরে বিস্তারিত নকশা প্রণয়ন শেষে ঠিকাদার নিয়োগ করা হলেও বাস্তবায়ন করতে গিয়ে নানা জটিলতা দেখা দেয়। এতে প্রকল্পটি সংশোধন করতে হচ্ছে।

সূত্রমতে, প্রকল্প ব্যয় বাড়ার পাশাপাশি এর বাস্তবায়ন মেয়াদকালও বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রাথমিকভাবে ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে প্রকল্পটি শেষ করার কথা ছিল। কিন্তু কাজের অগ্রগতি না হওয়ায় প্রথমবার ২০১৪ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানো হয়। তাতেও অগ্রগতি না হওয়ায় ২০১৮ সালের জুন পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানো হয়। এরপর তৃতীয় দফা আবারও ২ বছর মেয়াদ বাড়িয়ে ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত করা হয়। তবে কাক্সিক্ষত অগ্রগতি না হওয়ায় তা চতুর্থ দফায় ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়েছে। যদিও পঞ্চম দফায় প্রকল্পের মেয়াদকাল আরও এক বছর বাড়ানো হবে।

উল্লেখ্য, খুলনা-মোংলা বন্দর রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পের প্রস্তাবিত ব্যয়ের মধ্যে দুই হাজার ৯৪৮ কোটি দুই লাখ টাকা ভারত ঋণ দেবে ও এক হাজার ৩১২ কোটি ৮৭ লাখ টাকা সরকারি তহবিল থেকে সরবরাহ করতে হবে।

সূত্র: শেয়ার বিজ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১


About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।