বনলতায় খাবারের বাধ্যবাধকতা বাতিল হতে পারে

বনলতায় খাবারের বাধ্যবাধকতা বাতিল হতে পারে

নিউজ ডেস্ক: রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে চালু হওয়া বিরতিহীন ট্রেন ‘বনলতা এক্সপ্রেসে’ টিকিটের সঙ্গে বাধ্যতামূলকভাবে খাবারের মূল্য আদায় বাতিল হতে পারে। এ নিয়ে রেলপথ মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। গতকাল রবিবার তিনি রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজনের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলার পাশাপাশি খাবারের বাধ্যবাধকতা বাতিল চেয়ে চিঠি দেন। সেই সঙ্গে নিম্নমানের খাবারের পরিবর্তে উন্নতমানের খাবার সংযোজনের বিষয়টিও উল্লেখ করেন। তবে খাবারের মূল্য টিকিটের সঙ্গে আদায় না করার জন্যও বলা হয়েছে।

বনলতায় খাবারের বাধ্যবাধকতা তুলে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশাও। বিরতিহীন এই ট্রেনের যাত্রীদের সুবিধার্থে এ ব্যাপারে রেল মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তিনি চিঠি দিবেন বলেও গতকাল কালের কণ্ঠকে জানিয়েছেন।

এদিকে বনলতায় খাবার সরবরাহের কাজটি কোনো ধরনের টেন্ডার ছাড়াই ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশকে (ডিএমপি) দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা শাহনেওয়াজ। তিনি জানান, সরকারি সংস্থা হিসেবে সরকারের সঙ্গে শুধু চুক্তি করেই খাবার সরবরাহের কাজটি দেওয়া হয়েছে ডিএমপিকে। তবে এ থেকে আয়ের ১৫ শতাংশ পাবে রেল বিভাগ।

তবে রেলওয়ের একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে, এ চুক্তি বাস্তবায়নে মুখ্য ভূমিকা পালন করেন পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা। বিনিময়ে রাজশাহী স্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়া ট্রেনের খাবার সরবরাহের কাজটি করছে ওই কর্মকর্তার লোকজন। আর ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের খাবার সরবরাহ করছে ডিএমপি কর্তৃপক্ষ।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের ব্যক্তিগত সহকারী সিরাজুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে জানান, বনলতায় খাবারের দাম টিকিটের সঙ্গে কেটে নেওয়া এবং নিম্নমানের খাবার নিয়ে কালের কণ্ঠে সংবাদ প্রকাশের পর শাহরিয়ার আলম বিষয়টি নিয়ে গতকাল রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজনের সঙ্গে কথা বলেছেন। রেলপথমন্ত্রী বিষয়টি দ্রুতই সমাধান করা হবে বলে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে আশ্বস্ত করেছেন। এতে করে বনলতায় দ্রুত সময়ের মধ্যে টিকিটের সঙ্গে খাবারের দাম নেওয়ার সিদ্ধান্ত বাতিল হচ্ছে বলেই ধরে নেওয়া হচ্ছে।

সিরাজ জানান, রেলপথমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার পরই বিষয়টি নিয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে ওই মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। এতে তিনি টিকিটের মূল্যের সঙ্গে খাবারের ১৫০ টাকা মূল্য কেটে নেওয়ার সিদ্ধান্ত বাতিলের পাশাপাশি যাত্রীদের চাহিদামতো ওই ট্রেনে উন্নত খাবার পরিবেশনের ব্যবস্থা করার সুপারিশ করেছেন।

অন্যদিকে গতকাল রবিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ১৪ দলের শরিক বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, ‘বিরতিহীন বনলতা এক্সপ্রেস রাজশাহীবাসীর বহুল প্রত্যাশিত একটি ট্রেন। নির্বাচনের আগে আমার ৪৪ দফার অন্যতম ছিল এই ট্রেন চালুর প্রতিশ্রুতি। কিন্তু ট্রেনে দেড় শ টাকার বাধ্যতামূলক খাবারের বিষয়টি অপ্রয়োজনীয়। এ কারণে অনেকেই ট্রেনটির ব্যাপারে উৎসাহ হারিয়েছে বলে জানতে পেরেছি। কাজেই যাত্রীদের স্বার্থে সিদ্ধান্তটি পুনর্বিবেচনা করা জরুরি।’

বিবৃতিতে বাদশা বলেন, ‘এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আমি রেলপথ মন্ত্রণালয়কে স্থানীয় সংসদ সদস্য হিসেবে শিগগিরই একটি চিঠি দেব। আশা করি তারা বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করবে।’

প্রসঙ্গত, গত ২৫ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বনলতা এক্সপ্রেসের উদ্বোধন করেন। এই ট্রেনে যাত্রীদের একটি করে কেক, একটি বার্গার, একটি সিঙ্গাড়া এবং ৫০০ মিলিলিটারের পানির বোতল সরবরাহ করা হয়। এ জন্য টিকিটের মূল্যের সঙ্গে অতিরিক্ত ১৫০ টাকা নেওয়া হয়। ফলে প্রতিটি শোভন চেয়ারের দাম পড়ছে ৫২৫ টাকা। আর এসি চেয়ারের দাম পড়ছে ৮৭৫ টাকা। বাধ্যতামূলক এই খাবারের মান নিয়েও যাত্রীদের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এসব নিয়ে গত ৩ মে কালের কণ্ঠে একটি সরেজমিন প্রতিবেদন প্রকাশ হয়।

সুত্র:কালের কন্ঠ,৬ মে, ২০১৯

About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।