শিরোনাম

ছয় মাস ধরে টোকেন মেশিন বিকল : ব্যস্ততম স্টেশনে ঝুঁকিপূর্ণ পদ্ধতিতে চলছে ট্রেন

ছয় মাস ধরে টোকেন মেশিন বিকল : ব্যস্ততম স্টেশনে ঝুঁকিপূর্ণ পদ্ধতিতে চলছে ট্রেন

নিউজ ডেস্ক: নওগাঁর আত্রাই আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনের ইন্টার লকিং টোকেন (গোলা) মেশিন প্রায় ছয় মাস ধরে বিকল পড়ে রয়েছে। ফলে হাতে লেখা কাগজের (পেপাল লাইন ক্লিয়ার পিএলসি) মাধ্যমে ঝুঁকি নিয়ে ট্রেন চলাচল করছে। অথচ নিয়ম অনুযায়ী জরুরি অবস্থায় এক সপ্তাহের বেশি পিএলসি পদ্ধতিতে ট্রেন চালানোর কথা নয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আহসানগঞ্জ স্টেশন হয়ে প্রতি ২৪ ঘণ্টায় ২৬টি ট্রেন যাতায়াত করে। এর মধ্যে আন্তঃনগর ঢাকা আপ-ডাউন ১০টি, রাজশাহী আপ-ডাউন আন্তঃনগর চারটি ও মেইল দুটি, খুলনা আপ-ডাউন আন্তঃনগর চারটি ও মেইল দুটি এবং মালবাহী ট্রেন আপ-ডাউন করে চারটি।

ব্রিটিশ আমল থেকে টোকেন মেশিনের মাধ্যমে আহসানগঞ্জ ও মাধনগর স্টেশনের কার্যক্রম চলে আসছে। স্টেশনে দাঁড়ানো কোনো ট্রেনকে লাইন ক্লিয়ার সংকেত দিতে এটি ব্যবহার করা হয়। লাইন ক্লিয়ার থাকলে এ মেশিন থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে একটি নম্বরসংবলিত গোলা বেরিয়ে আসে। সেই নম্বরটি পয়েন্ট ম্যানের মাধ্যমে ট্রেনের চালকের কাছে পৌঁছান স্টেশনমাস্টার। আহসানগঞ্জ স্টেশনের কার্যক্রম এভাবেই চলে আসছিল। যদিও দেশের অনেক স্থানে এখন ডিজিটাল ইন্টার লকিং পদ্ধতি চালু হয়েছে।

প্রায় ছয় মাস আগে নাটোরের মাধনগর স্টেশনের পশ্চিম পাশে একটি সেতু নির্মাণের কাজ চলাকালে মাটির নিচ দিয়ে যাওয়া টোকেন মেশিনের তার কেটে যায়। তখন থেকেই আত্রাইয়ের আহসানগঞ্জ ও মাধনগর স্টেশনের টোকেন মেশিন বিকল। কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হলেও এখন পর্যন্ত মেরামতের উদ্যোগ নেয়া হয়নি। বর্তমানে আত্রাই আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন থেকে ট্রেনের জন্য লাইন ক্লিয়ার দিতে বেশ বেগ পেতে হয় স্টেশন মাস্টারকে। তারা অন্য স্টেশনের মাস্টারের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করে নিশ্চিত হওয়ার পর একটি কাগজে গোপন নম্বরটি লিখে ট্রেনের চালকের কাছে পৌঁছান। ফলে একটু ভুলের কারণে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যাওয়ার ঝুঁকি থেকে যায়।

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনের এক কর্মচারী বলেন, কোনো সমস্যা হলে নিয়ম অনুযায়ী সর্বোচ্চ এক সপ্তাহ পর্যন্ত হাতে লেখা কাগজের মাধ্যমে ট্রেন চালানো যায়। কিন্তু মাসের পর মাস এভাবে ট্রেন চালানো হচ্ছে। এটা কোনোভাবেই নিরাপদ নয়। হাতে লেখা কাগজের মাধ্যমে ট্রেন চালানোর ফলে কিছুদিন আগে আত্রাই পুরনো রেলওয়ে স্টেশনের উত্তর পাশে অল্পের জন্য দুটি ট্রেন মুখোমুখি সংঘর্ষ থেকে রেহাই পায়।

টোকেন মেশিনটি বিকল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ঊর্ধ্বতন মহলকে জানানো হয়েছে উল্লেখ করে আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনমাস্টার ছাইফুল ইসলাম বলেন, টোকেন মেশিন লাইন ক্লিয়ারের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যে স্থানে মাটির নিচে তার কেটেছে, তা শনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না বলেই এটি সচল হচ্ছে না। আশা করছি, অল্প দিনের মধ্যেই কর্তৃপক্ষ এটি মেরামত করে সচল করার ব্যবস্থা নেবে।

সুত্র:বণিক বার্তা, জানুয়ারি ০৫, ২০১৯


About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।