ঈশ্বরদীতে রেলওয়ের তেল বিক্রয়কালে রেলশ্রমিক লীগ নেতা আটক

রেলওয়ের ৬৪৪ লিটার তেল বিক্রয়কালে রেলশ্রমিক লীগ নেতা আটক

নিউজ ডেস্ক : রেলওয়ের লোকোমোটিভ থেকে উত্তোলিত ৬৪৪ লিটার তেল নির্ধারিত পিডাব্লুআই অফিসে না নিয়ে পাশের তেলের দোকানে বিক্রয়কালে রেলওয়ে শ্রমিকলীগ ঈশ্বরদী শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রোকনুজ্জামান রোকনকে আটক করেছে রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর গোয়েন্দা শাখার কর্মকর্তারা।

আজ শনিবার দুপুরে ঈশ্বরদী শহরের কদমতলা এলাকার মেসার্স আবেদা এন্টারপ্রাইজের মালিক আহমদ আলীর নিকট তেল বিক্রয় সময় তাকে আটক করা হয়। আটক রোকনুজ্জামান রোকন রেলওয়ে পাকশী বিভাগীয় প্রকৌশলী-২ অফিসের অধিনে ওয়েম্যান এবং রেলওয়ে ঈশ্বরদী স্টেশনের পয়েসম্যান আব্দুল ওহাবের ছেলে।

এই ঘটনায় তেল চোর রোকনুজ্জামানকে আটকসহ তেল উদ্ধার করতে গিয়ে দোকানদার আহমদ আলী এবং রোকনুজ্জামান কর্তৃক রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর গোয়েন্দা শাখার উপ-সহকারী পরিদর্শক (এএসআই) সিদ্দিকুর রহমানকে শারিরিকভাবে লাঞ্ছিত করাসহ হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে।

রেলওয়ের নিরাপতা বাহিনীর গোয়েন্দা শাখার এএসআই সিদ্দিকুর রহমান এবং হাবিলদার অশোক কুমার বিশ্বাস কালের কণ্ঠকে বলেন, শনিবার দুপুরে রেলওয়ের ঈশ্বরদী লোকোমোটিভ থেকে চারটি ড্রামে করে তেল উত্তোলন করে বাইরে বিক্রয় করার জন্য ভ্যানযোগে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন। এই সংবাদের ভিত্তিতে তারা ভ্যান দুটিকে অনুসরণ করেন। ভ্যান দুটি নির্ধারিত পিডাব্লুআই অফিসে না গিয়ে শহরের কদমতলাস্থ মেসার্স আবেদা এন্টারপ্রাইজ নামক তেলের দোকানে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে রেলওয়ে কর্মচার্র রোকনুজ্জামান রোকনের উপস্থিতিতে দোকানদার আহমদ আলী ড্রামে পাইপ লাগিয়ে তেল আনলোড শুরু করেন। তখন তাদের বাধা দেওয়া হয়। এ সময় রোকন ও আহমদ মিলে এএসআই সিদ্দিককে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত ও হত্যার হুমকি দেওয়া হয়।

অবস্থার বেগতিক দেখে অতিরিক্ত ফোর্সের জন্য খবর দেওয়া হয়। তখন নিরাপত্তা বাহিনীর আরো সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তেল ভর্তি চারটি ড্রামসহ রোকনুজ্জামানকে আটক করে নিরাপত্তা বাহিনীর কার্যালয়ে আনা হয়। এএস আই সিদ্দিক আরো বলেন, তাকে লাঞ্ছিত করা ও হত্যার হুমকি দেওয়ায় রোকনুজ্জামানের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট লিখিত অভিযোগ প্রদান করা হবে। 

রেলওয়ের একাধিক সূত্র অভিযোগ করে জানান, রোকনুজ্জামান ওয়েম্যান পদে চাকরি করলেও রেলওয়ে শ্রমিকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে পিডাব্লুআই অফিসে গ্যাংয়ে অতিরিক্ত কাজের নামে তেল চুরির সঙ্গে জড়িত। এর আগেও রোকন স্টেশনে ট্রেনের যাত্রীদের মারপিট করে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলো। তার বাবা আব্দুল ওহাব স্টেশনে পয়েস ম্যান কর্মচারী। কিন্তু বিগত প্রায় ১৬ বছর ধরে তিনি চাকরী না করেও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে বেতন, বোনাস, ওভার টাইম উত্তোলন করে আসছেন। এই নিয়ে রেলওয়ের স্থানীয় অন্যান্য কর্মচারীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও সমালোচনা বিরাজমান আছে বলে সুত্রগুলো দাবী করেন। 

সুত্রগুলো আরো জানান, দীর্ঘদিন ধরে এই চক্রটি রেলওয়ের ইঞ্জিন ও ডিপো থেকে তেল চুরি করে বিক্রয় করে আসছে। ইতিপূর্বে বেশ কয়েকবার আটক হওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। কিন্তু প্রত্যেকবারই রেলওয়ে থেকে তদন্ত কমিটির মাধ্যমে রফাদফা করা হয়েছে। এই কারণে বন্ধ হচ্ছে না তেল চুরি, কর্মস্থলে বছরের পর বছর অনুপস্থিত থেকেও বেতন উত্তোলন ও ট্রেন যাত্রীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার। 

রেলওয়ে শ্রমিকলীগ ঈশ্বরদী শাখার সাধারণ সম্পাদক আসলাম উদ্দিন মিলন কালের কণ্ঠকে বলেন, রোকনুজ্জামান রোকন তার কমিটির চার নম্বর সাংগঠনিক সম্পাদক। অপরাধ করলে তাকে অবশ্যায় শাস্তি পেতে হবে।

রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর এসিস্ট্যান্ড কমান্ডেন্ট শাহ-আলম কালের কণ্ঠকে বলেন, তেল চুরি ও নিরাপত্তা বাহিনীর গোয়েন্দ শাখার এএসআই সিদ্দিকুর রহমানকে লাঞ্ছিত করার সত্যতা পাওয়া গেছে। এএসআই সিদ্দিককে হত্যার হুমকি দেওয়ার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

পাকশী রেলওয়ে সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী (এইএন) মো. শিপন আলী কালের কণ্ঠকে বলেন, এ বিষয়ে রেলওয়ে পাকশী বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) নির্দেশে চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়ে ।

সূত্র:কালের কন্ঠ, ১৬ মে, ২০২০ 

About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।