লোকোমাস্টারদের জন্য থাকছে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ক্যাব

লোকোমাস্টারদের জন্য থাকছে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ক্যাব

নিউজ ডেস্ক: প্রথমবারের মতো শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) ড্রাইভারস ক্যাব সুবিধার ইঞ্জিন যোগ হচ্ছে রেলওয়ের বহরে। দক্ষিণ কোরিয়া থেকে কেনার প্রক্রিয়ায় থাকা ২০টি মিটার গেজ ইঞ্জিনে (লোকোমোটিভ) থাকছে এ সুবিধা। প্রতিটি ইঞ্জিনের দাম পড়ছে ৩৩ কোটি ৭০ লাখ টাকা। গতকাল রেলভবনে ইঞ্জিনগুলো সরবরাহের জন্য দক্ষিণ কোরিয়ার হুন্দাই রোটেম কোম্পানির সঙ্গে এ-সম্পর্কিত চুক্তি স্বাক্ষর করেছে রেলওয়ে।

চালকের জন্য এসি সুবিধার এসব ইঞ্জিন ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার গতিতে চলতে সক্ষম। ১৫ টন এক্সেল লোড ক্ষমতার ইঞ্জিনগুলো চলবে ডিজেলে। ২ হাজার ২০০ বিএইচপি ক্ষমতাসম্পন্ন মাইক্রোপ্রসেসর কন্ট্রোল সিস্টেমের এসব ইঞ্জিন এসি-এসি পাওয়ার ট্রান্সমিশনে চলবে। সম্পূর্ণ স্টিল বডির এসব ইঞ্জিন সর্বোচ্চ পরিবেশবান্ধব বলে জানিয়েছেন রেলওয়ে ও হুন্দাইয়ের কর্মকর্তারা।

চুক্তি অনুযায়ী, ২২ থেকে ২৮ মাসের মধ্যে সব ইঞ্জিন সরবরাহ করবে সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান। ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন ফান্ড, কোরিয়া ও বাংলাদেশ সরকারের যৌথ অর্থায়নে লোকোমোটিভগুলো কেনা হচ্ছে। ঋণসহায়তা দিচ্ছে এক্সিম ব্যাংক অব কোরিয়া। বাংলাদেশী টাকায় চুক্তি মূল্য ৬৭৪ কোটি ৯ লাখ ৭৭ হাজার ৩৮২ টাকা। এ হিসাবে প্রতিটি ইঞ্জিনের দাম পড়ছে প্রায় ৩৩ কোটি ৭০ লাখ টাকা।

ইঞ্জিনগুলো কেনা হচ্ছে ‘বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য ২০টি মিটার গেজ লোকোমোটিভ ও ১৫০টি মিটার গেজ কোচ ক্রয়’ প্রকল্পের মাধ্যমে। গতকাল রেলভবনে প্রকল্প পরিচালক আব্দুল মতিন চৌধুরী ও হুন্দাই রোটেমের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট হুয়াং উক কিম নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রেলপথমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। তিনি বলেন, উন্নত বিশ্বের রেল ব্যবস্থাও উন্নত। উন্নত দেশে যোগাযোগ ব্যবস্থার সব খাতকে সমানভাবে উন্নয়ন করা হয়ে থাকে। তাই রেল খাতকে একটি উন্নত দেশের কাতারে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে আমি কাজ করব। নতুন কোচ, ইঞ্জিন দ্বারা রেলওয়ে ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানো হবে। এ সময় নুরুল ইসলাম সুজন রেলওয়ের চলমান কয়েকটি প্রকল্পের কথা উল্লেখ করে বলেন, এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে সারা দেশের রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা অনেক উন্নত হবে।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে রেলের ইঞ্জিন সংকটের কথা উল্লেখ করে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, বর্তমানে রেলওয়েতে ১৭৮টি মিটার গেজ লোকোমোটিভ রয়েছে, যার ১৩৯টির অর্থনৈতিক আয়ুস্কাল (২০ বছর হিসাবে) শেষ হয়ে গেছে। কাজেই দ্রুত এসব ইঞ্জিন প্রতিস্থাপনের জন্য নতুন ইঞ্জিন পাওয়া খুবই দরকার। এ সময় নতুন ইঞ্জিনগুলো নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই সরবরাহের জন্য হুন্দাই রোটেমের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের অনুরোধ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক কাজী মো. রফিকুল আলমসহ রেলপথ মন্ত্রণালয়, রেলওয়ে ও হুন্দাই রোটেমের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সুত্র:বণিক বার্তা, মার্চ ১৯, ২০১৯


About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।