শিরোনাম

চীন বাদ, তিন প্রকল্পে জাপানের ঋণ চায় রেল


ইসমাইল আলী: চীনের অর্থায়নে জিটুজি ভিত্তিতে তিনটি প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয় রেলওয়ে। এর মধ্যে দুটি প্রকল্প চূড়ান্ত করা হয়। ওই দুই প্রকল্পে চার হাজার ৮৫০ কোটি টাকা অতিরিক্ত ব্যয় ধরা হয়েছিল। এ নিয়ে শেয়ার বিজসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে একাধিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। অপর প্রকল্পের নির্মাণব্যয় নির্ধারণেও দর কষাকষি চলছিল ঠিকাদারের সঙ্গে। এ প্রকল্প তিনটির অতিরিক্ত ব্যয় কমাতে নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী।

যদিও তিন প্রকল্পের কোনোটিরই নির্মাণব্যয় কমাতে রাজি নয় চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। ফলে প্রকল্পগুলো থেকে সরে গেছে চীন। এর পরিপ্রেক্ষিতে চীনকে বাদ দিয়ে তিন প্রকল্পে জাপানের কাছে অর্থায়ন চেয়েছে রেলওয়ে।

সম্প্রতি জাপানি প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠকে এ প্রস্তাব দেয় রেলওয়ে। এতে বিনিয়োগ চেয়ে সাতটি প্রকল্প তুলে ধরা হয়। এর মধ্যে প্রথমটিই ছিল জয়দেবপুর-ঈশ্বরদী ডুয়েলগেজ ডাবল লাইন নির্মাণ। প্রকল্পটি জাতীয় অর্থনৈতিক কাউন্সিলের নির্বাহী কমিটির (একনেক) অনুমোদন হয় ২০১৮ সালের নভেম্বরে। ১৬২ কিলোমিটার দীর্ঘ রেলপথটি ডুয়েলগেজ ডাবল লাইন নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৬৭ কোটি ৬৫ লাখ ডলার। এর মধ্যে জাপানের কাছে ঋণ চাওয়া হয়েছে ১০৩ কোটি ডলার।

এদিকে আখাউড়া-সিলেট মিটারগেজ রেলপথটি ডুয়েলগেজে রূপান্তর প্রকল্প একনেকে অনুমোদন পায় ২০১৯ সালের এপ্রিলে। প্রকল্পটি ব্যয় ধরা হয়েছে ১৮৯ কোটি ৪৬ লাখ ডলার। এর মধ্যে জাপানের ঋণ চাওয়া হয়েছে ১২৫ কোটি ৩৫ লাখ ডলার। আর জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ-জামালপুর মিটারগেজ রেলপথের পাশে ডুয়েলগেজ রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পটি এখনও একনেকে অনুমোদন হয়নি। এ প্রকল্পের সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছে ১০৬ কোটি ১৬ লাখ ডলার। এর মধ্যে জাপানের কাছে ঋণ চাওয়া হয়েছে ৯০ কোটি ২৪ লাখ ডলার।

সূত্র জানায়, প্রাথমিক আলোচনায় প্রথম প্রকল্পটিতে অর্থায়নে সম্মত হয়েছে জাপান। এক্ষেত্রে জাপানের অর্থায়নের বিষয়ে চূড়ান্ত অনুমোদনের পর দরপত্র আহ্বান করা হবে। আর ঠিকাদার নিয়োগ হলে সে অনুযায়ী ব্যয় নির্ধারণ ও প্রকল্পটি সংশোধন করা হবে। তবে বাকি দুটির বিষয়ে কিছু জানায়নি জাপান। এক্ষেত্রে জাপানের বিনিয়োগ না পাওয়া গেলে বিকল্প অর্থায়ন খোঁজা হবে।

যদিও এর আগে প্রকল্প তিনটিতে চীনের অর্থায়নে জিটুজি ভিত্তিতে বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয়া হয়। ফলে কোনো ধরনের দরপত্র ছাড়াই নিয়োগ করা হয় ঠিকাদার। এক্ষেত্রে দু’পক্ষের দর কষাকষির ভিত্তিতে প্রকল্প ব্যয় নির্ধারণ করা হয়। এতে নির্মাণব্যয় নির্ধারণ করা হয় রেলের চলমান অন্যান্য প্রকল্পের চেয়ে অনেক বেশি।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গত বছর তা যুক্তিযুক্তকরণে কমিটি গঠন করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। ওই কমিটি প্রকল্প দুটির ব্যয় পর্যালোচনাপূর্বক কিছু সুপারিশসহ একটি প্রতিবেদন পেশ করে প্রধানমন্ত্রীর নিকট। পাশাপাশি প্রকল্পগুলো অতিরিক্ত ব্যয়ও চিহ্নিত করা হয়। এর ভিত্তিতে রেলপথ মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ভৌত অবকাঠামো বিভাগ।

চিঠিতে বলা হয়, ‘প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করা হলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিন্ম    রূপ সদয় অনুশাসন প্রদান করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে ক. আখাউড়া-সিলেট প্রকল্পের অনুমোদিত ব্যয় থেকে তিন হাজার ৩৫৪ কোটি ৩১ লাখ টাকা (২০.৮%) কমে বিদ্যমান মিটারগেজ রেললাইনকে ডুয়েলগেজে রূপান্তর করতে হবে এবং খ. জয়দেবপুর-ঈশ্বরদী প্রকল্পের ক্ষেত্রে কমিটি কর্তৃক নির্ধারণকৃত অনুমোদিত দরমূল্য থেকে এক হাজার ৪৯৫ কোটি ৫১ লাখ টাকা (১২.৯১%) কমের বিষয়সহ সার্বিক বিষয়টি পর্যালোচনা করে প্রকল্পটি সংশোধন করতে হবে।’

এর বাইরে জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ-জামালপুর মিটারগেজ রেলপথের পাশে ডুয়েলগেজ রেলপথ নির্মাণে ব্যয় সুষ্ঠুভাবে যাচাই-বাছাইয়ের নির্দেশনা দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে পুনরায় দর কষাকষি কমিটি গঠন করে রেলপথ মন্ত্রণালয়। তবে কম ব্যয়ে কাজ করতে রাজি হয়নি চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রকল্পগুলোর জন্য বিকল্প অর্থায়ন খোঁজা শুরু করে রেলওয়ে।

জানতে চাইলে রেলওয়ের মহাপরিচালক ডিএন মজুমদার শেয়ার বিজকে বলেন, জাপানের সঙ্গে বৈঠকে সাতটি প্রকল্পের বিনিয়োগ চাওয়া হয়। তারা প্রাথমিকভাবে দুই প্রকল্পে অর্থায়নে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তবে এখনও তা চূড়ান্ত হয়নি। অর্থায়নের প্রস্তাব চূড়ান্ত হলে তারপর প্রকল্পগুলোর জন্য দরপত্র আহ্বান করা হবে।

উল্লেখ্য, উল্লিখিত তিন প্রকল্প ছাড়াও রেলের আরও চার প্রকল্পে জাপানের বিনিয়োগ চাওয়া হয়েছে। এগুলো হলো চট্টগ্রামে রেলওয়ের কেন্দ্রীয় ভবন (সিআরবি) পুনর্নির্মাণ, টঙ্গী-আখাউড়া মিটারগেজ ডাবল লাইনকে ডুয়েলগেজে রূপান্তর, দারিপাড়ায় নতুন ওয়ার্কশপ নির্মাণ এবং মহেশখালী-মাতারবাড়ি ডুয়েলগেজ সিঙ্গেল লাইন রেলপথ নির্মাণ। এ চারটির মধ্যে চট্টগ্রাম সিআরবি পুনর্নির্মাণেও প্রাথমিকভাবে সম্মত হয়েছে জাপান।

সূত্র:শেয়ার বিজ, ৬ নভেম্বর ২০২১


About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।