কক্সবাজার পর্যন্ত বুলেট ট্রেন চালু হবে : প্রধানমন্ত্রী

কক্সবাজার পর্যন্ত বুলেট ট্রেন চালু হবে : প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম হয়ে কক্সবাজার পর্যন্ত দ্রুত গতির বুলেট ট্রেন চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শুক্রবার (১৪ জুন) বিকাল ৩টায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটোত্তর সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী এ কথা জানান।

সরকারের চলমান উন্নয়নের অংশ হিসেবে এবার সর্বোচ্চ গুরুত্ব পেয়েছে পরিবহন ও যোগাযোগ খাত। একই সঙ্গে পর্যটন শিল্পে বাংলাদেশের ব্যাপক সম্ভাবনা থাকায় এ খাতকেও ব্যাপক গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে এবারের বাজেটে।

দেশের অর্থনীতির ওপর ব্যাপক প্রভাব থাকায় পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থায় দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। এই খাতের মধ্যে সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে রেল মন্ত্রণালয়কে।

২০১৮-১৯ অর্থবছরে এ খাতে ১ হাজার ৫০৮ কোটি টাকা বরাদ্দ থাকলেও নতুন অর্থবছরে (২০১৯-২০) তা বাড়িয়ে ৩ হাজার ৪২৬ কোটি টাকা করা হয়েছে।

আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের উন্নয়ন বাজেটের মোট আকার ধরা হয়েছে ২ লাখ ১১ হাজার ৬৮৩ কোটি টাকা, যার ২৬ দশমিক ১ শতাংশ বরাদ্দের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে এ খাতে।

চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের তুলনায় আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতের বরাদ্দ বেড়েছে ১৫ হাজার ৬৩২ কোটি টাকা। আর ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগকে অন্তর্ভুক্ত করে এ খাতে ৬৪ হাজার ৮২০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে, যা মোট বাজেটের ১২ দশমিক ২ শতাংশ।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে অনুন্নয়ন ও উন্নয়ন মিলিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগে ২৯ হাজার ২৭৩ কোটি টাকা, সেতু বিভাগে ৮ হাজার ৫৬৫ কোটি টাকা, রেলপথ মন্ত্রণালয়ে ১৬ হাজার ২৬৩ কোটি টাকা, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে ৩ হাজার ৮৩২ কোটি টাকা, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ে ৩ হাজার ৪২৬ কোটি টাকা এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে ৩ হাজার ৩৪১ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করেন।

চলতি অর্থবছরে সংশোধিত বাজেটে এ বরাদ্দ সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগে ২৩ হাজার ৪৮৬ কোটি টাকা, সেতু বিভাগে ৬ হাজার ৩৪৬ কোটি টাকা, রেলপথ মন্ত্রণালয়ে ১১ হাজার ২৩০ কোটি টাকা, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে ৪ হাজার ২১৫ কোটি টাকা, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ে ১ হাজার ৭১ কোটি টাকা এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে ২ হাজার ৮৪০ কোটি টাকা।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের উচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জনের অগ্রযাত্রায় যোগাযোগ অবকাঠামো ক্ষেত্রে বিশেষ করে রেলপথকে অন্যতম অগ্রাধিকার খাত হিসেবে বিবেচনা করে ব্যাপক পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে সরকার।

তিনি বলেন, ২০৪১ সালের মধ্যে দেশকে উন্নত দেশে রূপান্তরের লক্ষ্যে সড়ক উন্নয়ন ও সংস্কার, নতুন সড়ক নির্মাণ, উড়ালসেতু ও আন্ডারপাস নির্মাণ, সেতু ও কালভার্ট নির্মাণ ইত্যাদি জনগুরুত্বপূর্ণ পরিকল্পনা বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশে সমন্বিত ও নিরবচ্ছিন্ন যোগাযোগ নেটওয়ার্ক স্থাপনে আমরা পদ্মা বহুমুখী সেতু, কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল এবং ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েসহ অনেকগুলো বড় প্রকল্প বাস্তবায়ন করছি।

সুত্র:অধিকার.নিউজ,১৪ জুন ২০১৯

About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।