তাইওয়ানে টানেলের ভেতরে ট্রেন লাইনচ্যুত, নিহত ৪৮

তাইওয়ানে টানেলের ভেতরে ট্রেন লাইনচ্যুত, নিহত ৪৮

তাইওয়ানে একটি সুড়ঙ্গের (টানেল) ভেতরে ট্রেন দুর্ঘটনায় অন্তত ৪৮ জন নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন আরও অর্ধশতাধিক মানুষ। স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার সকাল ৯টায় পূর্ব তাইওয়ানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। গত চার দশকের মধ্যে তাইওয়ানে এটাই সবচেয়ে বড় প্রাণঘাতী ট্রেন দুর্ঘটনা। খবর: বিবিসি, রয়টার্স।

রাজধানী তাইপে থেকে তাইটংগামী এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে প্রায় ৫০০ যাত্রী ছিলেন, যাদের একটি বড় অংশ ছিলেন পর্যটক। তাছাড়া অনেকেই সপ্তাহান্তে বাড়ি ফিরছিলেন। ফলে ট্রেন ছিল যাত্রীতে পূর্ণ।

তাইওয়ান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শুক্রবার থেকে সেখানে দীর্ঘ ছুটি শুরু হচ্ছে। এ উপলক্ষে অনেক মানুষ এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায় ভ্রমণ করছিলেন, যার কারণে স্বাভাবিকভাবেই ট্রেনে প্রচণ্ড ভিড় ছিল।

তাইওয়ানের পরিবহন মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দুর্ঘটনায় কমপক্ষে ৭২ ট্রেন যাত্রী আহত হয়েছেন। তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। দুর্ঘটনাকবলিত ট্রেনের ভেতরে এখনও অনেক যাত্রী আটকে পড়ে আছেন বলেও জানিয়েছেন তারা। এর আগে তাইওয়ানের সেন্ট্রাল ইমারজেন্সি অপারেশন সেন্টার বলছে, সুড়ঙ্গের ভেতরে ট্রেনের চারটি বগি লাইনচ্যুত ও ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। উদ্ধারকর্মীরা সেখানে প্রবেশের চেষ্টা করছেন। তবে বগিগুলো এতটাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে যে সেগুলোর ভেতরে উদ্ধাকর্মীদের পৌঁছাতে বেগ পেতে হচ্ছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো বলছে, আসন খালি না থাকায় ট্রেনের ভেতরে অনেকে দাঁড়িয়েও ছিলেন। ট্রেন দুর্ঘটনায় পড়লে প্রচণ্ড ঝাঁকিতে তাদের অনেকে ছিটকে পড়েন। ওই ট্রেনের চালকও আছেন নিহতদের মধ্যে। ঘটনাস্থল থেকে আসা ছবিতে দেখা গেছে, লাইনচ্যুত বগিগুলো টানেলের ভেতরে দুমড়ে-মুচড়ে আছে। তার মধ্যেই আটকে থাকা যাত্রীদের উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ট্রেনের প্রথম চারটি বগি থেকে প্রায় ১০০ যাত্রীকে উদ্ধার করা হয়। কিন্তু পঞ্চম থেকে অষ্টম বগি দুর্ঘটনায় দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়ায় সেগুলোয় পৌঁছানো কঠিন হয়ে পড়ে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, অনেক যাত্রী তাদের সুটকেস ও ব্যাগ ফেলে ট্রেনের ছাদ দিয়ে সুড়ঙ্গের বাইরে বেরিয়ে আসেন, এরপর উদ্ধারকারীরা তাদের নেমে আসতে সহায়তা করেন। তাইওয়ানে ঐতিহ্যবাহী টম্ব সুইপিং ডে’র দীর্ঘ ছুটির শুরুতে এ ট্রেন দুর্ঘটনাটি ঘটল।

২০১৮ সালে তাইওয়ানের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে রেল লাইনচ্যুত হয়ে ১৮ জন নিহত ও ১৭৫ জন আহত হয়েছিলেন। ১৯৮১ সালে স্বশাসিত এ দ্বীপে আরেকটি ট্রেন দুর্ঘটনায় ৩০ জন নিহত হয়েছিলেন।

সূত্র:শেয়ার বিজ, এপ্রিল ৩, ২০২১ 

About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।