শিরোনাম

ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি ২ জুন থেকে ঈদে ঘরে ফেরা

ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি ২ জুন থেকে ঈদে ঘরে ফেরা

পিনাকি দাসগুপ্ত: আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হবে আগামী ২ জুন থেকে। আর ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ৯ জুন থেকে। রেলসূত্র জানিয়েছে, সড়কের নানাবিধ সমস্যার কারণে এবার ট্রেনে চাপ বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বিষয়টি মাথায় রেখেই রেল কর্তৃপক্ষ ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে। বাড়ানো হচ্ছে কোচ ও ইঞ্জিন। অপরদিকে বাসের টিকিট বিক্রির ব্যাপারে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

এ ব্যাপারে রেলওয়ের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেন বলেন, ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির ব্যাপারে প্রাথমিকভাবে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সংবাদ সম্মেলন করে পরে বিস্তারিত জানানো হবে। রেলসূত্র জানায়, এবারও পাঁচ দিন ধরে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি হবে। ২ থেকে ৬ জুন ঢাকার কমলাপুর ও চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন থেকে ঈদযাত্রার আগাম টিকিট বিক্রি হবে। প্রতিদিন সকাল আটটা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত কাউন্টারে এই টিকিট পাওয়া যাবে।

প্রথম দিন ২ জুন বিক্রি হবে ১১ জুনের টিকিট। ৩ জুন বিক্রি হবে ১২ জুনের টিকিট। ৪ জুন বিক্রি হবে ১৩ জুনের টিকিট। ৫ জুন বিক্রি হবে ১৫ জুনের টিকিট। ৬ জুন হবে ১৬ জুনের টিকিট। অপরদিকে ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ৯ জুন থেকে। আর এ দিন বিক্রি হবে ১৮ জুনের টিকিট। ১০ জুন বিক্রি হবে ১৯ জুনের টিকিট। ১১ জুন বিক্রি হবে ২০ জুন থেকে। ১২ জুন বিক্রি হবে ২১ জুনের টিকিট। ১৩ জুন বিক্রি হবে ২২ জুনের টিকিট।

রেলসূত্র জানায়, দেশের সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা খারাপ থাকায় ট্রেনের ওপর এবার বাড়তি চাপ পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ কারণে চাপ সামলাতে রেল কর্তৃপক্ষ বেশ কিছু বাড়তি প্রস্তুতি নিয়েছে। পাশাপাশি অতীত অভিজ্ঞতা থেকে এবারে ট্রেনের আগাম টিকিট কালোবাজারি রোধ ও যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নতুন কিছু পদ্ধতি প্রয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সূত্র জানায়, ঈদের সময় প্রতিদিন সারাদেশে দুই লাখ ৬৫ হাজার যাত্রী পরিবহন করবে রেলওয়ে। এ জন্য ১৫০টি বাড়তি কোচ যোগ করা হচ্ছে। বাড়ানো হচ্ছে ইঞ্জিনের সংখ্যা। আর ঈদের চার দিন আগে থেকে সাত জোড়া স্পেশাল ট্রেন চলাচল করবে। তা চলবে ঈদ পরবর্তী সাতদিন পর্যন্ত। এসব বিশেষ ট্রেন ঢাকা থেকে দেওয়ানগঞ্জ, রাজশাহী, পার্বতীপুর এবং চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুর রুটে যাত্রী পরিবহন করবে। শোলাকিয়া ঈদগায় যাতায়াতের জন্য ঈদের দিন ভৈরববাজার থেকে কিশোরগঞ্জ এবং ময়মনসিংহ থেকে কিশোরগঞ্জ রুটে দুটি ট্রেন চালানো হবে।

রেলসূত্র জানায়, একজন যাত্রী সর্বাধিক চারটি টিকিট কিনতে পারবেন এবং বিক্রিত টিকিট ফেরত নেয়া হবে না। কমলাপুরের ২৩টি কাউন্টার থেকে টিকিট বিক্রি হবে। এরমধ্যে নারীদের জন্য রয়েছে আলাদা কাউন্টার। তবে নারীদের চাপ বেশি থাকলে আরো একটি কাউন্টার খোলা হবে। কমলাপুর স্টেশন থেকে প্রতিদিন আগাম টিকিট বিক্রি হবে ২১ হাজার ১২২টি। তবে এর মধ্যে ২৫ শতাংশ দেয়া হচ্ছে অনলাইনে, পাঁচ শতাংশ ভিআইপি কোটা ও পাঁচ শতাংশ রেলওয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য বরাদ্দ রয়েছে।

বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েসনের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও শ্যামলী পরিবহনের এমডি রমেশ চন্দ্র ঘোষ বলেন, ঈদে বাসের আগাম টিকিটি বিক্রি নিয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। ২/৪ দিনের মধ্যে মিটিং করে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সুত্র:ইত্তেফাক, ১৬ মে, ২০১৮ ইং


About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।