ঢাকা-চট্টগ্রাম ট্রেন ভ্রমণ এখন মাত্র পাঁচ ঘণ্টায়

ঢাকা-চট্টগ্রাম ট্রেন ভ্রমণ এখন মাত্র পাঁচ ঘণ্টায়

আজহার মাহমুদ  :এইতো সেদিনও ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম পৌঁছতে একদিনের প্রস্তুতি নিতে হতো। সড়কের পথে পথে দুর্ঘটনা যানজটে নাকাল হতে হতো যাত্রীদের। এমন দিনও গেছে, রওয়ানা হওয়ার ২৪ ঘণ্টা পরও চট্টগ্রাম পৌঁছানো যায়নি। আবার রেলপথ সিঙ্গেল লাইন হওয়ায় এক ট্রেনকে লাইন ছাড়তে গিয়ে পথে পথে অন্য ট্রেনের যাত্রাবিরতি ছিল নিত্যঘটনা। তবে এখন সে চিত্র অনেকটাই পাল্টে গেছে। ডাবল রেললাইন ঢাকা-চট্টগ্রাম যাতায়াতের সময় কমিয়েছে। পাঁচ থেকে সোয়া পাঁচ ঘণ্টাতেই এখন চট্টগ্রাম পৌঁছানো যাচ্ছে। শিগগিরই এই সময় চার ঘণ্টায় নেমে আসবে বলে জানিয়েছে রেলওয়ে।

রেলপথ সচিব ফিরোজ সালাউদ্দিন জানিয়েছেন, গত বছরের   শেষ দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের কিছু অংশে ডাবল রেললাইন চালু হওয়ার পর থেকে রেলের গতি বেড়েছে। লাকসাম থেকে আখাউড়া পর্যন্ত ডাবল লাইনের কাজ শেষ হলে যাতায়াতে আরো কম সময় লাগবে। আবার ডাবল লাইনের কারণে আগের তুলনায় ট্রেনের সংখ্যাও বেড়েছে। নতুন সময়সূচি নির্ধারণ করা হয়েছে।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, বর্তমান সরকারের আমলে ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথে প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ হচ্ছে। এর মধ্যে অনেক কাজ শেষ হয়েছে, বেশকিছু কাজ শেষ হওয়ার পথে। ঢাকা-চট্টগ্রামের ৩৪৬ কিলোমিটার রেলপথের মধ্যে লাকসাম থেকে আখাউড়া পর্যন্ত ৭১ কিলোমিটার ছাড়া বাকি অংশ ডাবল লাইনের কাজ শেষ হয়েছে। বেশকিছু অবকাঠামোগত উন্নয়নও শেষ হয়েছে। চলতি বছরের মধ্যে লাকসাম থেকে আখাউড়া পর্যন্ত অংশটির ডাবল লাইন সম্পন্ন হলে বিরতিহীন ট্রেনগুলো আরো কম সময়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম যাতায়াত করবে।

রেলের এমন পরিসেবায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন যাত্রীরাও। সম্প্রতি চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় যাওয়ার পথে বেশ কয়েকজন যাত্রীকে রেলসেবা নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করতে দেখা গেছে। বিশেষ করে, সুবর্ণ এক্সপ্রেস ও সোনার বাংলায় যুক্ত হওয়া নতুন লাল-সবুজ বগি নিয়ে অনেকেই খুশি। তেমনই একজন সানজি স্টিল করপোরেশনের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ফজলে এলাহী ইত্তেফাককে বলেন, ‘আগে বিমানেই ঢাকা-চট্টগ্রাম যাতায়াত করতাম। সম্প্রতি একবার বিমানের টিকেট না পেয়ে রেল ভ্রমণের পর থেকে অভিজ্ঞতা পাল্টে গেছে। রেলের সেবার মান বেড়েছে। বিমানে যেতে হলে ইপিজেড রোডের যানজট ডিঙিয়ে এয়ারপোর্ট যেতে হয়, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ইমিগ্রেশন শেষ করতে হয়, আবার ঢাকায় পৌঁছার পরও গন্তব্যে পৌঁছতে সবমিলে অন্তত ৪ ঘণ্টার বেশি সময় লাগে।

পূর্বাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) প্রকৌশলী আব্দুল হাই ইত্তেফাককে বলেন, রেলে বিপুল বিনিয়োগের সুফল পেতে শুরু করেছে যাত্রীরা।

সুত্র:দৈনিক  ইত্তেফাক,২৮ মার্চ ২০১৭

About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।