অবশেষে ট্রেন থামবে মির্জাপুরেও

অবশেষে ট্রেন থামবে মির্জাপুরেও

মো. জোবায়ের হোসেন :
টাঙ্গাইল বাসীর প্রাণের দাবি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত ঢাকা-টাঙ্গাইল সরাসরি ট্রেন সার্ভিসের ঘোষনা আসে গত আসে গত ৮ নভেম্বর। “ঢাকা-টাঙ্গাইল কমিউটার ট্রেন সার্ভিস” নামের রেল সেবাটি উদ্ধোধন করেন মাননীয় রেল মন্ত্রী।

টাঙ্গাইল-ঢাকা এই কমিউটার রেল সেবাটিতে মোট ১৩ টি স্টপেজ রেখে নির্ধারিত হয় ভাড়ার তালিকা। কিন্তু সেবাটি চালু হওয়ার পরদিনই স্টপেজ তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয় টাঙ্গাইলের মহেড়া, মির্জাপুর ও গাজীপুরের মৌচাক স্টেশনকে। এর প্রতিবাদে টাঙ্গাইল মির্জাপুরের সাধারন জনতা মানব বন্ধনের ডাক দেন। ১০ নভেম্বর মির্জাপুরের সচেতন নাগরিকের ব্যানারে মির্জাপুর রেল স্টেশনে একটি শান্তিপূর্ন মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত দাবির সাথে একাত্মতা ঘোষনা করে তাতে অংশ নেন মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র সাহাদাৎ হোসেন সুমন। মানববন্ধন থেকে জোরালো দাবি জানানো হয় মির্জাপুর রেল স্টেশনটিকে ট্রেন স্টপেজ দেওয়ার।

পরবর্তীতে ঢাকা-টাঙ্গাইল সরাসরি ট্রেন সার্ভিস বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক বিষয়টি অবগত হলে এটি দুঃখজনক আখ্যা দিয়ে মির্জাপুরবাসীর দাবি আদায়ে রেল মন্ত্রীর সাথে কথা বলবেন বলে জানান। তারই ধারাবাহিকতায় আজ থেকে মির্জাপুরেও ট্রেন থামবে বলে নতুন সিদ্ধান্তে উপনীত হয় রেল বিভাগ। তবে নাম বদলে “টাঙ্গাইল কমিউটার” ট্রেনটি “টাঙ্গাইল এক্সপ্রেস” হিসেবে চলবে ও স্টপেজ সংখ্যা কমিয়ে ৭ এ নামিয়ে আনা হয়েছে। মিটারগেজ এর পরিবর্তে চলবে ব্রডগ্রেজ ট্রেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা-টাঙ্গাইল সরাসরি ট্রেন সার্ভিস বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক সাঈদ মো. সাইফুল্লাহ জানান আজ মঙ্গলবার থেকেই এই ট্রেন সেবাটি চালু হবে। আগের ট্রেনের চাইতে এই ট্রেনের সেবা ও গুনগতমান অনেক ভাল হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

মির্জাপুর রেল স্টেশন মাস্টার নাজমুল হুদা বকুলও ট্রেন থামার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সুত্র:বাংলা পত্রিকা ২৪.কম

About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।