রেললাইনে ঝুঁকির বাজার

রেললাইনে ঝুঁকির বাজার

আফজাল:
সময় সকাল ৮টা। সব ধরনের তাজা কাঁচা তরকারি আর মাছ-মাংস কিনতে টঙ্গী আরিচপুর বউ-বাজার গেলেন আশরাফ নামে এক ব্যক্তি। রেললাইনের পাশে বসা এক দোকানির কাছে গিয়ে সবজির দামদর করছেন আর ট্রেনের দিকে তাকাচ্ছেন। কখন যে ট্রেন আসে সেই ভয়ও কাজ করছে। আবার অনেকেরই ট্রেন এলো কিনা সেদিকে খেয়াল নেই। ইতিপূর্বে বউ-বাজার এলাকায় ট্রেনে কাটা পড়ার ঘটনাও ঘটেছে বেশ কয়েকবার। এখানে প্রতিদিন শত শত ব্যক্তি মৃত্যুঝুঁকিতে কেনাবেচা করছেন। বিক্রেতা আবদুস সালাম বলেন, ‘ট্রেন যখন আইবো তখন উইঠা যাইমু।’ কথা হয় ওই ক্রেতা আশরাফের সঙ্গে। তিনি বলেন, এখানে অনেক দোকান বসে। সবরকমের তাজা তরকারি পাওয়া যায়, সেজন্য এখানে আসি। তবে এখানে ঝুঁকিতে কেনাকাটা করতে হয় এটা ঠিক। এলাকাবাসীর অভিযোগ, দখলদাররা রেলওয়ের লোকজনকে ম্যানেজ করে শত শত দোকান বসিয়ে মৃত্যুর ফাঁদ বানিয়েছে।

অপরদিকে কাঁচাবাজারের বর্জ্য রেললাইনে ফেলে রেলের যন্ত্রাংশ নষ্ট করছে। নগরীর বিভিন্ন এলাকায় রেলের জায়গা দখল করে গড়ে উঠেছে অবৈধ বাজার ও স্থাপনা। এরমধ্যে টঙ্গী বউ-বাজার, মধুমিতা, রেলগেট, রেলস্টেশন, বনমালা, হায়দরাবাদ, পূবাইল, জয়দেবপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় দখল রয়েছে। টঙ্গী বউ-বাজার এলাকার বাজারটি সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ। সরকারি দলের নেতা-কর্মী পরিচয় দিয়ে বেশ কয়েকজন ব্যক্তি রেললাইনের উভয় পাশে ও সিটি করপোরেশনের জায়গা দখল করে শত শত দোকান বসিয়ে লাখ লাখ টাকা চাঁদা তুলছে বলে অভিযোগ রয়েছে।
স্থানীয় ৪৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রিপর বলেন, ‘আগে এই জায়গা পৌরসভা থেকে টেন্ডার হইত, মানুষের চলাচলের স্বার্থে এখন আর এই জায়গা টেন্ডার হয় না। দলীয় লোকজন এই জায়গা দখল করে খায়।’ এ ব্যাপারে রেলের ঢাকা বিভাগীয় সম্পত্তি কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, ‘টঙ্গী বউ-বাজারে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা দোকানপাট ও বিভিন্ন স্থাপনা, রেলস্টেশনে লন্ডন আবাসিক হোটেল, সুকন্দীবাগে অবৈধ দোকানপাট বুলডুজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। রেলের স্বার্থে রেল কর্তৃপক্ষ জায়গা ফেরত নিচ্ছে অথচ অনেকেই এনিয়ে মানববন্ধন করে। সরকারি ও জনস্বার্থে উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত থাকবে।’

সুত্র:বাংলাদেশ প্রতিদিন, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯


About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।