নোয়াখালীতে আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট কালোবাজারির হাতে

নোয়াখালীতে আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট কালোবাজারির হাতে

আকাশ মো. জসিম:
নোয়াখালী রেলস্টেশনে আন্তঃনগর রেলের টিকিট সাধারণ যাত্রীদের ভাগ্যে জোটে না। যাত্রীরা ১০ দিন আগে লাইনে দাঁড়িয়েও দূরপাল্লার টিকিট পান না। অথচ কালোবাজারিদের হাতে বাড়তি টাকা দিলেই সহজেই মিলে যায় যে কোনো শ্রেণির টিকিট। তাই বেশিরভাগ যাত্রী আসনবিহীন টিকিট নিয়ে দাঁড়িয়ে ভ্রমণ করতে বাধ্য হচ্ছেন।

রেল সূত্রে জানা গেছে, নোয়াখালীতে আন্তঃনগর ট্রেন থামে তিনটি স্টেশনে। স্টেশন তিনটি হলো নোয়াখালী স্টেশন, মাইজদী কোর্ট ও চৌমুহনী স্টেশন। নোয়াখালী স্টেশন থেকে প্রতিদিন ঢাকাগামী আন্তঃনগর উপকূল এক্সপ্রেসের এসি, সাধারণ কেবিন, শোভন চেয়ার এবং প্রথম শ্রেণি, শোভন চেয়ার ও সাধারণ শোভনের টিকিট রয়েছে। রেলের নিয়মানুযায়ী ভ্রমণের ১০ দিন আগে যে কোনো যাত্রী স্টেশন কাউন্টার থেকে অথবা অনলাইনে প্রয়োজনীয় টিকিট সংগ্রহ করতে পারবেন।

কিন্তু অভিযোগ রয়েছে, জেলার সবকটি স্টেশনের স্টেশন মাস্টার এসব টিকিটের বেশিরভাগই আগেভাগে কেটে নির্ধারিত কমিশন নিয়ে চিহ্নিত কালোবাজারির কাছে বিক্রি করে দেন। সেই টিকিট হাতে নিয়ে কালোবাজারিরা প্রকাশ্যে বিক্রি করে। যে কারণে প্ল্যাটফর্ম সংলগ্ন চা-স্টল, মুদি ও পানদোকানেও দ্বিগুণ দামে সেসব টিকিট পাওয়া যায়। আর কিছু টিকিট স্টেশন মাস্টার রেখে দেন রাজনীতিবিদ ও প্রভাবশালীদের মন রক্ষার জন্য। রেল কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় প্রশাসনের চোখের সামনে এসব হলেও তারা সবাই নির্বিকার। দীর্ঘদিন ধরে কালোবাজারিদের নিবৃত্ত করতে অভিযান না থাকায় আবারও পুরোনো কারবার সচল করছেন স্টেশন মাস্টাররা।
মাইজদী কোর্ট রেলস্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে প্রকাশ্যে পাঁচ-ছয়জন কালোবাজারি হাতে টিকিট নিয়ে প্রকাশ্যে বিক্রি করছে। অভিযোগ রয়েছে, প্রকাশ্যে এসব টিকিট বিক্রির মদতদাতা খোদ স্টেশন মাস্টার। ভুক্তভোগী যাত্রীরা জানান, স্টেশনে রেলের টিকিটের জন্য লাইনে দাঁড়িয়েও লাভ হয় না। লাইনে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়েও টিকিট (আসন) মেলে না। তবে বেশি টাকা দিলে লাইনের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা কালোবাজারিরা মুহূর্তেই টিকিট পকেট থেকে বের করে দেয়। কখনও কখনও ট্রেনে আসন পেতে টিকিটের বাড়তি টাকা গুনতে হয় যাত্রীদের। কালোবাজারির দৌরাত্ম্য মেনেই চলছে এখানকার অসহায় যাত্রীদের রেল ভ্রমণ। মিজানুর রহমান বিপ্লব নামে এক ক্ষুব্ধ যাত্রী জানান, যেখানে স্টেশন মাস্টারের বাসায় বা পকেটে টিকিট থাকে, সেখানে বিচার দেব কার কাছে।

এ ব্যাপারে নোয়াখালীর স্টেশন মাস্টার আবু নোমান কোনো সদুত্তর না দিয়ে বলেন, ‘ভাই, একদিন এসে চা খেয়ে যান। সাক্ষাতে আলোচনা হবে।’

সুত্র:শেয়ার বিজ,  মার্চ ১৯, ২০১৯

About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।