বিশেষ সংবাদ

আন্তঃনগর ৩৫ ট্রেন কাল থেকে চলবে নতুন সূচিতে

নিউজ ডেস্ক: আগামীকাল ১০ জানুয়ারি (শুক্রবার) থেকে সারাদেশে ৩৫টি আন্তঃনগর ট্রেনের সময়সূচিতে পরিবর্তন আসছে। পাশাপাশি বাড়ছে ৯টি ট্রেনের যাত্রা বিরতি। নতুন ট্রেন চালু হওয়ায় রেলের পূর্ব ও পশ্চিমাঞ্চলের ৩৫টি ট্রেনের সময় সূচিতে এই সমন্বয়। এতে…


ট্রেন দুর্ঘটনার বছর

নিউজ ডেস্ক: বিগত বছরগুলোর তুলনায় বিদায়ী বছরে একের পর এক দেশে ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনা ঘটে। অব্যবস্থাপনা, রেললাইন সংস্কারের অভাব ও সিগন্যালিং ব্যবস্থা ভেঙে পড়ায় এসব দুর্ঘটনা ঘটে। ফলে নিরাপদ ভ্রমণের প্রতীক এ বাহনটিও হয়ে ওঠে…


মাঠের কর্মকর্তারা প্রকল্পে, উপেক্ষিত রেলপথ

শিপন হাবীব : রেলে দুর্ঘটনা, বগি লাইনচ্যুতি, সিডিউল বিপর্যয় ইত্যাদি যেন পিছু ছাড়ছে না। উনিশ থেকে বিশ হলেই ঘটছে বিপদ। প্রাণহানির মতো ঘটনাও ঘটছে। অথচ অ্যানালগ থেকে সম্পূর্ণ ডিজিটাল (কম্পিউটারাইজড ও প্যানেল বোর্ড নিয়ন্ত্রিত) হয়েছে…


অবৈধ রেল গেট বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে রিট

নিউজ ডেস্ক: দেশের সব রেল ক্রসিংয়ে গেটম্যান নিয়োগ ও অবৈধ গেট বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে। আজ রবিবার সৈয়দা শাহিন আরা লাইলীর পক্ষে অ্যাডভোকেট একলাস উদ্দিন ভুইয়া জনস্বার্থে রিট দায়ের করেন। বিচারপতি…


ট্রেনের দুর্ঘটনা রোধে অটোসিগন্যাল ট্রান্সমিটার উদ্ভাবন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা ও সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনার পর উদ্বেগে দেশের মানুষ। ভ্রমণের জন্য এ বাহনটিকে নিরাপদ মনে করা হতো। তবে এর সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের অবহেলা, লাইনের ত্রুটি, অনিরাপদ লেভেলক্রসিংসহ বিভিন্ন কারণে ঘটছে দুর্ঘটনা। ফলে আতঙ্ক…


বগুড়ায় রেলওয়ের দুই শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

নিউজ ডেস্ক: বগুড়ায় রেলওয়ের জায়গায় থাকা দুই শতাধিক দোকানঘর ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। রেলওয়ের ভূসম্পত্তি বিভাগ মঙ্গলবার সকাল থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত স্টেশন রোডের এসব অবৈধ স্থাপনা বুলড্রোজার দিয়ে ভেঙে দেয়। বগুড়া রেলওয়ের…


উল্লাপাড়ায় ট্রেনের বগিতে আগুন পুরোটাই নাশকতা

শংকর কুমার দে :সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ট্রেনের বগিতে আগুন দেয়ার ঘটনায় নাশকতার আলামত পেয়েছে গোয়েন্দা সংস্থা। ট্রেনের ইঞ্জিনের পরিবর্তে বগিতে আগুন কেন ? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে দেখা গেছে, এই ট্রেন লাইনে অতীতেও আগুন দেয়া…


৬ ঘণ্টা পর ঢাকার সঙ্গে উত্তরাঞ্চলের রেল যোগাযোগ সচল

নিউজ ডেস্ক: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হওয়ার ৬ ঘণ্টা পর ঢাকার সঙ্গে উত্তরাঞ্চলের রেল যোগাযোগ সচল হয়েছে। তবে লাইনচ্যুত বগি উদ্ধার ও সংস্কার শেষ হতে ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা সময় লাগতে পারে…


টানা দুই বছর বৃদ্ধির পর আয় কমেছে রেলের

সুজিতসাহা:গত অর্থবছরে (২০১৮-১৯) বাংলাদেশ রেলওয়ের মোট আয় হয়েছে ১ হাজার ৪৭৮ কোটি টাকা, যা আগের অর্থবছরের তুলনায় ৮ কোটি টাকা কম। যাত্রী পরিবহন বৃদ্ধি, নতুন কিছু সেবা চালু ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি সত্ত্বেও এভাবে আয় কমে যাওয়ার বিষয়টি ভাবাচ্ছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে। গত অর্থবছরে কিছুটা হ্রাস পেলেও আগের দুই অর্থবছরে রেলওয়ের আয় ছিল ঊর্ধ্বমুখী ধারায়। বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে রেলের আয় হয়েছিল প্রায় ৯০৪ কোটি টাকা। পরের অর্থবছরে (২০১৬-১৭) এক ধাক্কায় ৪০০ কোটি বেড়ে আয়ের পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ১ হাজার ৩০৪ কোটি টাকায়। এরপর ২০১৭-১৮ অর্থবছরে তা বৃদ্ধি পায় আরো ১৮২ কোটি টাকা। এ সময় রেলওয়ের মোট আয় হয়েছিল প্রায় ১ হাজার ৪৮৬ কোটি টাকা। সেখান থেকে ৮ কোটি টাকা হ্রাস পেয়ে গত অর্থবছরে আয়ের পরিমাণ নেমে আসে প্রায় ১ হাজার ৪৭৮ কোটি টাকায়। রেলওয়ের আয়ের প্রধান দুটি উৎস হলো যাত্রী ও পণ্য পরিবহন খাত। রেলওয়ের গত অর্থবছরের আয় খাত পর্যালোচনায় দেখা যায়, এ সময় অন্যান্য খাতে বাড়লেও মূলত এ দুটি খাতেই আয় হ্রাস পেয়েছে, যার নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে সার্বিক আয়ে। প্রতি বছর রেলের বহরে নতুন নতুন ট্রেন যুক্ত হচ্ছে। পণ্য পরিবহন খাতেও ব্যবসায়িক ও সরকারি প্রয়োজনেও রেলের ব্যবহার বেড়েছে। ভাড়া বাড়লেও সাম্প্রতিক বছরগুলোয় যাত্রীদের মধ্যে রেলভ্রমণের আগ্রহও দেখা যাচ্ছে বেশি। বাড়ানো হয়েছে বহরের কোচ সংখ্যাও। রেলওয়ের অবকাঠামো খাতে গত এক দশকে সব মিলিয়ে ৫০ হাজার কোটি টাকারও বেশি ব্যয় করেছে সরকার। এছাড়া ট্র্যাক উন্নয়ন, নতুন রেলপথ নির্মাণের পাশাপাশি বিপুল পরিমাণ লোকবলও নিয়োগ দেয়া হয়েছে। কিন্তু এতকিছুর পরও সেবার মানে নতুনত্ব আনতে না পারায় বাংলাদেশ রেলওয়ে প্রত্যাশিত মাত্রায় আয় করতে পারছে না বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। রেলওয়ের হিসাব বিভাগ থেকে সম্প্রতি রেলপথ মন্ত্রণালয় ও রেলভবনে সংস্থাটির আয়ের হিসাব পাঠানো হয়। এটি বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে রেলওয়ের যাত্রী খাতে আয় হয়েছে ৮৮২ কোটি ৫৩ লাখ ৩৭ হাজার টাকা। এর আগে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে এ খাতে আয়ের পরিমাণ ছিল ৯০৫ কোটি ৩০ লাখ ৩১ হাজার টাকা। গত অর্থবছরে পণ্য পরিবহন খাতে রেলওয়ের আয় ছিল ২৬৬ কোটি ৯ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে এর পরিমাণ ছিল ২৮৫ কোটি ৯৪ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। এছাড়া গত অর্থবছরে পার্শেল খাতে ২৪ কোটি ৫২ লাখ ৮০ হাজার টাকা ও বিবিধ খাতে ৩০৪ কোটি ৭৭ লাখ ৫১ হাজার টাকা আয় করেছে রেলওয়ে। দুটি খাতেই আয়ের ধারা ছিল ঊর্ধ্বমুখী। আয় হ্রাসের কারণ হিসেবে ইঞ্জিনস্বল্পতাকে দায়ী করছেন রেলওয়ের পরিবহন বিভাগের কর্মকর্তারা। বিভাগটির ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বণিক বার্তাকে বলেন, রেলের উন্নয়নে অনেক উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো ইঞ্জিন। এটি না থাকায় রেলওয়ে কার্যত ধুঁকছে। কোচ আমদানি, ট্র্যাক সংস্কার ও নতুন ট্র্যাক নির্মাণ হলেও ইঞ্জিনস্বল্পতায় স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনা করা যাচ্ছে না। এ কারণে যাত্রী পরিবহন স্বাভাবিক থাকলেও পণ্য পরিবহন ধীরে ধীরে কমে আসছে। এছাড়া অতিরিক্ত কোচ সংযোজনে রেলভবন থেকে অনুমতি নেয়ার নিয়মটিও রেলওয়ের রাজস্ব আয় বৃদ্ধির অন্তরায়। রেলওয়ের ইঞ্জিন সংকট বর্তমানে প্রকট আকার ধারণ করেছে। যাত্রী চাহিদা থাকলেও নির্ধারিত সময়ে ট্রেন চালাতে পারছে না রেলওয়ে। এছাড়া গত কয়েক বছরে ট্রেন পরিচালনার ওয়ার্কিং টাইম টেবিল বাস্তবায়ন না করায় রেলওয়ে সেবার মানেও পিছিয়ে পড়ছে বলে মনে করছেন রেলসংশ্লিষ্টরা। এছাড়া সড়কপথের দ্রুত উন্নতিও রেলওয়ের আয় হ্রাসের ক্ষেত্রে কিছুটা অনুঘটকের কাজ করেছে বলে মনে করা হচ্ছে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, এক সময়ের ব্যস্ততম রেলরুট ঢাকা-চট্টগ্রামে রেলওয়ের যাত্রী চাহিদায় এখন কিছুটা মন্দাভাব দেখা যাচ্ছে। এ রেলপথের ৩২১ কিলোমিটারের সিংহভাগ ডাবল লাইন হয়ে যাওয়ার পরও দ্রুতগামী ট্রেনের গন্তব্যে পৌঁছতে ন্যূনতম সময় লাগে সোয়া ৫ ঘণ্টা। রেলওয়ের পক্ষ থেকে এ রুটে যাতায়াতের (বিরতিহীন ট্রেন) সময় সাড়ে ৪ ঘণ্টায় নামিয়ে আনার ঘোষণা দেয়া হলেও সেটি কার্যকর হয়নি। অন্যদিকে ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দেশের বেশ কয়েকটি এলাকার মহাসড়কগুলো চার লেনে উন্নীত হয়েছে। ফলে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামসহ বেশ কয়েকটি স্থানে যাতায়াতের ক্ষেত্রে রেলের বদলে সড়কপথকেই বেছে নিচ্ছেন অনেক যাত্রী। সার্বিক বিষয়ে জানতে চাইলে রেলপথমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বণিক বার্তাকে বলেন, সরকার রেলের উন্নয়নে বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। আশা করছি, দ্রুততম সময়ে রেলসেবার মান বৃদ্ধির পাশাপাশি রেলওয়ে লাভজনক খাতে পরিণত হবে। সুত্র:বণিক বার্তা, নভেম্বর ০৫, ২০১৯


ট্রেনের দায়িত্ব ফেলে আত্মীয়ের বাড়িতে, গার্ড বরখাস্ত

নিউজ ডেস্ক:ট্রেনের গার্ড আত্মীয়ের বাড়িতে চলে যাওয়ায় প্রায় এক ঘণ্টা যাত্রীরা দুর্ভোগের মধ্যে ছিলেন। পরে গার্ডকে ডেকে আনতে হয়েছে। এরপর ট্রেনটি যাত্রা করে। চট্টগ্রাম-নাজিরহাট শাখা রেলপথে গত মঙ্গলবার এ ঘটনা ঘটে। প্রাথমিক তদন্তের পর ওই…