শিরোনাম

দোহাজারী লাইনে যুক্ত হচ্ছে আরো এক জোড়া ট্রেন

দোহাজারী লাইনে যুক্ত হচ্ছে আরো এক জোড়া ট্রেন

মনজুর আলম:
চট্টগ্রাম-দোহাজারী রুটে এতদিন এক জোড়া ট্রেন চলাচল করে আসলেও যাত্রীদের চাহিদার কথা বিবেচনায় নিয়ে প্রায় দু’যুগ পর নতুন করে আরো এক জোড়া ট্রেন সংযোজন করতে যাচ্ছে রেল কর্তৃপক্ষ। আগামীকাল ৩ নভেম্বর শনিবার থেকে তা চালু হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেন রেলের একটি সূত্র। এ রুটে যাতায়াতকারীরা জানান, চট্টগ্রাম থেকে দোহাজারী পর্যন্ত প্রায় ৪৬ কিলোমিটারের পথটি রেলের একটি গুরুত্বপূর্ণ রুট। এ রুটে এক সময় প্রতিদিন সকাল -বিকাল ৪ জোড়া ট্রেনের নিয়মিত চলাচল ছিল। এলাকাবাসী নিরাপদ, সহজ ও সাশ্রয়ী যাতায়াতের জন্য এরুট টি যখনই জনপ্রিয় হয়ে উঠে তখন হঠাৎ লোকসানের অজুহাত তুলে ৯০ দশকের দিকে একে একে বন্ধ করে দেয়া হয় এখানকার এসব লোকাল ট্রেনগুলো।
এতে দক্ষিণ চট্টগ্রামের হাজার হাজার যাত্রীকে প্রায় ২ যুগেরও অধিক সময় ধরে চরম দুর্ভোগে যাতায়াত করে আসতে হচ্ছে। দীর্ঘদিন যাবৎ ধরে এ রুটে ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানোর দাবি ছিল তাদের। গত ২০১৩ সালের ৫ মে চট্টগ্রাম রেল স্টেশনে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কমল কৃষ্ণ ভট্টাচার্যের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রামে ডেমু ট্রেন সার্ভিসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক বলেছিলেন, কালুরঘাটে নতুন সেতু নির্মাণসহ অতি শীঘ্রই দোহাজারী লাইনেও ডেমু ট্রেন চালু করা হবে।

এর পর থেকে হবে হচ্ছে করে এভাবেই কেটে গেছে দীর্ঘ পাঁচটি বছর। কিন্তু এখনো দেখা মেলেনি দক্ষিণ চট্টগ্রামবাসির বহুল প্রতীক্ষিত সেই ডেমু ট্রেনের। আগামী সময়টুকুতে দেখা মিলবে কিনা তা নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না কেউ। তবে এর মধ্যে নতুন একজোড়া ট্রেন চালু করার উদ্যোগ নেয়ায় ডেমু ট্রেন প্রতিশ্রুতির কিছুটা হলেও বাস্তবায়িত হতে যাচ্ছে বলে মনে করেন যাত্রীরা । মোঃ শাহনেওয়াজ চৌধুরী নামের পটিয়া ধলঘাটের একজন যাত্রী বলেন , আমাদের সময় আমরা এ ট্রেনগুলো করে লেখা-পড়ার জন্য,কেউ-কেউ চাকরি-বাকরি ও ব্যবসায়িক কাজে কত স্বাচ্ছ্যন্দ্যে শহরে যাতায়াত করেছি। কিন্তু এখন এ রুটের ট্রেনের এ দুরাবস্থার কারণে যাত্রীদের অনেক টাকা ব্যয় করে বহু কষ্টে অন্য পরিবহনে যাতায়াত করতে হচ্ছে। আবার অনেক’কেই অর্জিত আয়ের সিংহভাগ খরচ করে চাকরি ,ব্যবসা-বাণিজ্য ও সন্তানদের লেখা-পড়ার জন্য শহরে বাসা নিয়ে থাকতে হচ্ছে। আগের মত এ রুটে ট্রেনের সংখ্যা বাড়িয়ে চলাচলে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা গেলে দক্ষিণ চট্টগ্রামের লাখো মানুষ উপকৃত হবে বলে মনে করেন তিনি। বোয়ালখালী উপজেলা সদর কাঁচা বাজারের আবুল বশর ও মুরাদ মুন্সির হাটের আবুল কালাম নামের দুজন তরকারি ব্যবসায়ি জানান,এক সময় দোহাজারী ও পটিয়ায় উৎপাদিত শাক-সব্জিগুলো ট্রেনে করে স্বল্প খরচে বিক্রি করতে পারতো। এতে ক্ষেত চাষীদের পাশাপাশি ক্রেতারাও অনেক উপকৃত হত। কিন্তু এখন এ রুটে ট্রেনের সে অবস্থা না থাকায় ব্যবসায়িরা সহজে এ মুখি হতে চান না,যারা যাচ্ছেন তাদেরকে অন্য পরিবহন করে এসব শাক-সব্জি আনতে হচ্ছে বিধায় এতে পরিবহণ খরচ বেড়ে যাওয়ায় পন্যের দাম ও বাড়িয়ে নিতে হচ্ছে তাদের। না হয় খরচে পোষানো যাচ্ছে না বলে দাবি করেন তারা। এ রুটে ট্রেনের সংখ্যা বৃদ্ধির খবরে অন্যদের মত তারাও খুশি । এতে তাদের এ ব্যবসায় আবারো গতি ফিরতে পারে বলে আশান্বিত তারা। আই ইউ সি’র আইন বিভাগের শিক্ষার্থী সাকিবুল আলমের মতে দক্ষিণ চট্টগ্রামের সড়কগুলোতে পরিবহন নৈরাজ্যে ও কৃত্রিম সংকটের কারণে যাতায়াতে অনেক সময় দুর্ভোগে পড়তে হয় তাদের।

এ রুটে ট্রেনের সংখ্যা বৃদ্ধি করে চলাচলে শৃঙ্খলা ফেরানো গেলে অন্যান্যদের পাশাপাশি দক্ষিণ চট্টগ্রামের শত-শত কলেজ- ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা উপকৃত হবে । বাংলাদেশ রেলওয়ের সহকারী চীফ অপারেটিং সুপারিন্টেনডেন্ট চট্টগ্রাম পূর্ব মোঃ ওমর ফারুক জানান,স্থানীয়দের দাবি ও চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় চট্টগ্রাম-দোহাজারী রুটে বর্তমানে চলাচলরত এক জোড়ার পাশাপাশি অতিরিক্ত আরো একজোড়া ট্রেন সংযোজন করা হচ্ছে। আগামীকাল শনিবার থেকে তা চলাচল শুরু করবে। ফলে এখন হতে এ রুটে নতুন সময়সূচি অনুযায়ী সকাল বিকাল ২ জোড়া লোকাল ট্রেন চলাচল করবে। একটি ট্রেন সকাল ৬.৪০ মিনিটে দোহাজারী থেকে ছেড়ে চট্টগ্রাম রেল স্টেশন পৌছাঁবে সকাল ৯.৪০ মিনিটে। এটি আবার সকাল ১১ টায় চট্টগ্রাম রেল স্টেশন থেকে ছেড়ে দোহাজারী পৌছাবে দুপুর ২ টায়। অপর ট্রেনটি বিকাল ৩ টায় দোহাজারী থেকে ছেড়ে চট্টগ্রাম রেল স্টেশন পৌছঁবে সন্ধ্যা ৬ টায়। এটি আবার সন্ধ্যা ৭ টায় চট্টগ্রাম রেল স্টেশন থেকে ছেড়ে দোহাজারী পৌছাবে রাত ১০ টায়। তবে সার্ভিসিং এর প্রয়োজনে শুক্রবার ১ জোড়া ট্রেনের সাপ্তাহিক বন্ধ থাকবে বলে জানান তিনি।

সুত্র:দৈনিক আজাদী, ২ নভেম্বর, ২০১৮


About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।