কলকাতা-খুলনা রেলরুট : যশোরে ৩ মিনিট থামবে বন্ধন এক্সপ্রেস

কলকাতা-খুলনা রেলরুট : যশোরে ৩ মিনিট থামবে বন্ধন এক্সপ্রেস

নিউজ ডেস্ক:
আগামী ৭ মার্চ থেকে যশোরে যাত্রাবিরতি করবে খুলনা-কলকাতা রেলরুটে চলাচলকারী বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন। যশোর রেলওয়ে জংশনে ৩ মিনিটের এই যাত্রাবিরতিতে যাত্রীরা ওঠানামাও করতে পারবে। যশোরের জন্য এ ট্রেনে ৭৫টি আসন বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। আগামী ১ মার্চ থেকে এসব টিকিট কেনা যাবে। রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের কার্যালয় থেকে যশোর রেলওয়ে জংশনের স্টেশনমাস্টারের কাছে পাঠানো এক চিঠির সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর খুলনা থেকে ভারতের কলকাতা পর্যন্ত রেলরুটে ৪৫৬ আসনের ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ নামে আন্তর্জাতিক ট্রেনটির চলাচল শুরু হয়। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ ট্রেন দিয়ে যাতায়াতের জন্য কেবিনে দেড় হাজার ও চেয়ারের জন্য এক হাজার টাকা দিয়ে টিকিট কাটতে হয়। এছাড়া ৫০০ টাকা ভ্রমণ কর দিতে হয়। ট্রেনের যাত্রাপথে বেনাপোলে যাত্রীর পাসপোর্ট, ভিসাসহ ইমিগ্রেশনের যাবতীয় কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করা হয়। সপ্তাহের প্রতি বৃহস্পতিবার সকালে ট্রেনটি কলকাতা থেকে ছেড়ে আসে এবং বিকালে আবার খুলনা থেকে কলকাতার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। তবে যাত্রীর অভাবে প্রায়ই ফাঁকা আসন নিয়েই ট্রেনটি চলাচল করে। প্রতিবার যাত্রায় ট্রেনটিতে গড়ে শখানেক যাত্রী থাকে। অথচ গত এক বছরে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ১০ লাখেরও বেশি মানুষ দুই দেশের মধ্যে যাতায়াত করেছে। এ কারণে যাত্রীর জন্য যশোরে বন্ধন এক্সপ্রেসের যাত্রাবিরতি দেয়ার দাবি ওঠে।

বেনাপোল স্টেশনের মাস্টার মো. সাইদুজ্জামান বলেন, গত জানুয়ারি পর্যন্ত এ ট্রেনে করে দুই দেশের মধ্যে ১৫ হাজার ৫৭৯ জন যাতায়াত করেছে। এর মধ্যে কলকাতা থেকে এসেছে ৬ হাজার ৭৪৫ জন ও খুলনা থেকে কলকাতায় গেছে ৮ হাজার ৮৩৪ জন। গত বৃহস্পতিবার এ ট্রেনে করে কলকাতা থেকে খুলনায় যাত্রী এসেছে মাত্র ৭৯ জন।

সূত্র জানায়, স্থানীয়দের দাবি ও যাত্রীর অভাব বিবেচনা করে অবশেষে রেলওয়ে যশোরে বন্ধন এক্সপ্রেসের যাত্রাবিরতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ-সংক্রান্ত একটি চিঠি গত বৃহস্পতিবার যশোর রেলওয়ে জংশনের স্টেশনমাস্টার পুষ্পল কুমার চক্রবর্তীর কাছে পাঠানো হয়েছে। রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত ওই চিঠিটি যশোরে এসে পৌঁছায় গত বৃহস্পতিবার।

এ তথ্য নিশ্চিত করে যশোর রেলওয়ে জংশনের স্টেশনমাস্টার পুষ্পল কুমার চক্রবর্তী বলেন, কলকাতা-খুলনা ট্রেন আগামী ৭ মার্চ থেকে যশোরে তিন মিনিটের জন্য দাঁড়াবে। পাসপোর্ট, ভিসা ও টিকিট দেখে যাত্রীদের ট্রেনে ওঠানো হবে। পরে বেনাপোল স্টেশনে ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।

তিনি জানান, যশোরের জন্য ৭৫টি আসন বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। টিকিটের দাম কমানো হবে কিনা, এ বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। আপাতত খুলনা পর্যন্ত পূর্ণ ভাড়া দিয়েই আগামী ১ মার্চ থেকে যশোরে টিকিট সংগ্রহ করা যাবে। ভ্রমণ করসহ ট্রেনের চেয়ারের জন্য দেড় হাজার ও কেবিনের জন্য দুই হাজার টাকা ভাড়া নেয়া হবে। আর অন্য কোনো খরচ নেই।

সুত্র:বণিক বার্তা, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৯

About the Author

RailNewsBD
রেল নিউজ বিডি (Rail News BD) বাংলাদেশের রেলের উপর একটি তথ্য ও সংবাদ ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল।